এক নারীর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

আটক দু'জন তিন দিনের রিমান্ডে

প্রকাশ: ১৬ জুলাই ২০১৯      

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের প্রতিষ্ঠাতাকালীন কেন্দ্রীয় কমিটির অন্যতম সদস্য টাঙ্গাইলের প্রবীণ আইনজীবী ও মুক্তিযোদ্ধা মিঞা মো. হাসান আলী রেজাকে হত্যার ঘটনায় এক নারী, তার স্বামী ও ছেলেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পরে ওই নারী সোমবার টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মনিরা সুলতানার আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। অন্য দু'জনের বিরুদ্ধে পুলিশ সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন করলে আদালত ওই নারীর স্বামী ও ছেলের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

ওই নারী হলো টাঙ্গাইল শহরের আকুরটাকুর পাড়ার কল্পনা রানী সরকার। তার স্বামী তপন কুমার সরকার ও ছেলে তন্ময় সরকার। রোববার রাতে শহরের মুসলিমপাড়ার নিজ বাসা থেকে পুলিশ তাদের গ্রেফতার করে।

টাঙ্গাইলের আদালত পরিদর্শক তানভীর আহমেদ বলেন, এ মামলায় গ্রেফতার হওয়া কল্পনা রানী আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। এ ছাড়া পুলিশ তার স্বামী ও ছেলের সাত দিনের রিমান্ড চাইলে আদালত তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। ওসি সায়েদুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় জড়িত থাকা সন্দেহে রোববার রাতে শহরের আকুরটাকুর মুসলিমপাড়া থেকে তপন কুমার সরকার, তার স্ত্রী কল্পনা রানী ও ছেলে তন্ময় সরকারকে গ্রেফতার করা হয়। মামলার তদন্তকালে নিখোঁজ হওয়ার আগে হাসান আলী রেজার মোবাইল ফোনে চারবার কথা হয় ওই নারীর সঙ্গে। এরই সূত্র ধরে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

এদিকে, হাসান আলী রেজার হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবিতে সোমবার মানববন্ধন করেন আইনজীবীরা। আদালত চত্বরে আয়োজিত এ কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন জেলা অ্যাডভোকেট বার সমিতির সভাপতি রফিকুল ইসলাম খান আলো। আইনজীবীদের মধ্যে বক্তব্য দেন বার সমিতির সাবেক সভাপতি মো. নূরুল ইসলাম ও ফায়েকুজ্জামান নাজিব, জিপি আনন্দ মোহন আর্য্য এবং বার সমিতির সাধারণ সম্পাদক মঈদুল ইসলাম শিশির। পরে একই দাবিতে তারা টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার বরাবর স্মারকলিপি দেন। একই সঙ্গে সোমবার থেকে তিন দিন কালো ব্যাজ ধারণ করেন আইনজীবীরা।

হাসান আলী রেজা নিখোঁজ হওয়ার পাঁচ দিন পর গত ১৩ জুলাই লৌহজং নদী থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।