নেত্রকোনায় ৩ ধর্ষক গ্রেফতার

প্রকাশ: ১৬ জুলাই ২০১৯      

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

খালিয়াজুরীর চাকুয়া ইউনিয়নের রানীচাপুর গ্রামে শারীরিক ও বাকপ্রতিবন্ধী ১০ বছরের এক শিশু ও আটপাড়ার স্বরমশিয়া ইউনিয়নের রূপচন্দ্রপুর পূর্বপাড়া গ্রামের এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে। রোববার রাতে আটপাড়া ও সোমবার খালিয়াজুরী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে পৃথক মামলা হয়েছে।

খালিয়াজুরীর রানীচাপুর গ্রামের শারীরিক ও বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী শিশুটির বাবা ফেরি করে ব্যবসা করেন। একই গ্রামের ইমান আলীর ছেলে সাদেক মিয়া সহকারী হিসেবে তার সঙ্গে কাজ করে। এরই সুবাধে প্রায় সময়ই শিশুটির বাড়িতে সাদেক মিয়ার যাওয়া-আসা ছিল। রোববার রাতে ফেরি করে সাদেককে নিয়ে বাড়ি ফেরেন শিশুটির বাবা।গভীর রাতে মেঝেতে থাকা শিশুটিকে ধর্ষণ করে সাদেক মিয়া। শিশুটির গোঙানির শব্দ শুনে ঘুম থেকে জেগে ওঠেন শিশুটির বাবা ও মা। পরে তারা সাদেক মিয়াকে আটক করে পুলিশে খবর দেন। সোমবার মেয়েটির মা বাদী হয়ে থানায় সাদেক মিয়ার বিরুদ্ধে মামলা করেন। পুলিশ ধর্ষক সাদেক মিয়াকে গ্রেফতার করে আদালতে এবং মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য সদর হাসপাতালে পাঠায়। অন্যদিকে আটপাড়ার কোনাপাড়া উচ্চবিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীকে একই গ্রামের মৃত ফজর আলীর ছেলে আছিম উদ্দিন বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়ার পথে প্রায় সময়ই উত্ত্যক্ত করত এবং বিভিন্ন প্রলোভন দিত। একপর্যায়ে ওই ছাত্রীকে ১৮ জুন ধর্ষণ করে আছিম উদ্দিন। গত শুক্রবার ফের ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে সে। এদিকে খালিয়াজুরীতে ধর্ষণের অভিযোগে আবদুল্লাহ আল মোজাহিদ নামে একজনকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ।