জনপ্রতিনিধির বিরুদ্ধে জমি দখলচেষ্টার অভিযোগ

কলাপাড়ায় সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশ: ২৬ জুলাই ২০১৯

পটুয়াখালী ও কলাপাড়া প্রতিনিধি

কলাপাড়ায় অর্ধশত বছরের দখলীয় ২৫ একর ৪০ শতক রেকর্ডকৃত জমিতে সাইনবোর্ড টাঙিয়ে দখলচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে জেলা পরিষদ সদস্য আসলাম হাওলাদার ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে। পৌর শহরের চিঙ্গরিয়া এলাকার মনোজ কুমার দাস গতকাল বৃহস্পতিবার কলাপাড়া প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন। এ সময় জমি রক্ষায় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো।

লিখিত বক্তব্যে মনোজ কুমার দাস জানান, ১৯৫৮ সাল থেকে ১০টি দলিলের মাধ্যমে ২৫ একর ৪০ শতক জমি কিনে ৫৬ বছর ধরে চাষাবাদ করে আসছেন তারা। এ বছরও কিছু জমিতে আউশ আবাদ করা হয়েছে। কিন্তু মৌসুমের শুরুতে গত সপ্তাহের বিভিন্ন সময়ে পটুয়াখালী জেলা পরিষদ সদস্য আসলাম হাওলাদারের নেতৃত্বে রুবেল সিকদার, মো. ফোরকান, নিজাম গাজী, হাবিব, রাখাইন অংচোলা, থয়মং মাতুব্বর, চানথান মাতুব্বর, অংচান মাতুব্বর, চোচাং মাতুব্বর বর্গাচাষিকে জমি চাষাবাদ করতে বাধা এবং হুমকি-ধমকি দিয়ে জমি থেকে তাড়িয়ে দেয়। বর্তমানে জেলা পরিষদের ওই সদস্যের সেখানে একটি সাইনবোর্ড টাঙানো রয়েছে। এ সময় জমির অপর মালিক বিভাস দাস, বিকাশ দাস, তাদের আইনজীবী নাথুরাম ভৌমিক উপস্থিত ছিলেন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত জেলা পরিষদ সদস্য আসলাম হাওলাদার জানান, তার বাড়ি এলাকায় এ জমি নিয়ে রাখাইনদের সঙ্গে হিন্দুদের বিরোধ রয়েছে। এ নিয়ে সালিশ বৈঠকও হয়। সেখানে তিনি দলিলসহ কাগজপত্রের আলোকে শুধু নিরপেক্ষ কথাবার্তা বলেছেন। এ ছাড়া এ সংক্রান্ত তার কোনো সম্পৃক্ততা নেই। সাইনবোর্ড দিয়েছে রাখাইনরা। ওয়ারিশ সংক্রান্ত জটিলতা রয়েছে। অযথা তার ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণের জন্য তাকে জড়ানো হয়েছে।