বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ গজারিয়ায় কিশোরীর পরিবারকে হুমকি

প্রকাশ: ০৫ জুলাই ২০১৯

গজারিয়া (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি

অসহায়-হতদরিদ্র পরিবারের এক কিশোরীর সঙ্গে প্রেম ও বিয়ের প্রলোভনে কয়েক দফা ধর্ষণের পর সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা প্রেমিকাকে ছেড়ে পালিয়ে গিয়েছিল প্রেমিক উপজেলার বড়ভাটেরচর গ্রামের সৌদি প্রবাসী নূরা মিয়ার ছেলে ইয়াসিন মিয়া (২২)।

পরে ওই কিশোরী আদালতে মামলা করলে গজারিয়া থানার পুলিশ ২৬ এপ্রিল ধর্ষককে গ্রেফতার করে পরদিন আদালতে পাঠালে ধর্ষক ইয়াসিন ১৬৪ ধারায় নিজের অপরাধ স্বীকার করে। কিশোরীর পরিবার জানায়, ধর্ষক ইয়াসিন গ্রেফতার হওয়ার পর ধর্ষকের স্বজনরা আদালতে পাঠানোর দিন সকালে স্থানীয় কাজী নিয়ে বিয়ের ব্যবস্থা করার চেষ্টা করেছিল কিন্তু পুলিশের অনমনীয়তায় কাজীর প্রতিনিধি থানা থেকে ফেরত আসে।

ইয়াসিনের চাচা আবু মিয়ার নেতৃত্বে তার স্বজনরা কিশোরীর পরিবারকে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। কিশোরী বলেন, ইয়াসিনের আত্মীয়স্বজন চাপ প্রয়োগ করছে দুই লাখ টাকার বিনিময়ে মীমাংসার জন্য। ইয়াসিন যদি আমাকে বিয়ে না করে আমার অনাগত সন্তানের পিতৃপরিচয় কী দেব সমাজে। আমি চাই আদালতের মাধ্যমে আমার স্বামীর অধিকার ও সন্তানের বাবার অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে।