সড়ক দখল করে পশুর হাট

সিদ্ধিরগঞ্জ

প্রকাশ: ১০ আগস্ট ২০১৯      

শাহজাহান জনি, সিদ্ধিরগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ)

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের (নাসিক) ৩নং ওয়ার্ডের সিদ্ধিরগঞ্জের ব্যস্ততম সড়ক দখল করে বসানো হয়েছে কোরবানির পশুর হাট। সড়ক দখল করে হাট বসানোর কারণে স্থানীয় হাজার হাজার মানুষ চলাচলে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। নাসিক ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহজালাল বাদলের বাড়ির সামনে থেকে মৌচাক সড়ক পর্যন্ত প্রায় দুই কিলোমিটার সড়কে এই পশুর হাট বসানো হয়েছে। ৩নং ওয়ার্ডের মাদানীনগর এলাকায় বালুর মাঠ উল্লেখ করে অস্থায়ী পশুর হাট ইজারা দিয়েছে সিটি করপোরেশন। কিন্তু সেখানে সীমাবদ্ধ না রেখে হাটটি দুই কিলোমিটার সড়কজুড়ে বসানো হয়েছে। প্রকৃতপক্ষে ইজারায় উল্লেখিত এলাকায় কোনো বালুর মাঠ নেই।

নাসিক ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলরের ঘনিষ্ঠ সহচর শাজাহান সাজু নামে এক লোক হাটের ইজারাদার হলেও এর আসল নিয়ন্ত্রক সাত খুনের ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত প্রধান আসামি নূর হোসেনের ভাতিজা ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহজালাল বাদল। মাঠ না থাকায় মাদানীনগর ক্যানেলপাড় চৌরাস্তা থেকে পশ্চিম দিকে মৌচাক পর্যন্ত সড়ক সম্পূর্ণ বন্ধ করে বসানো হয়েছে হাট। চৌরাস্তা থেকে সানারপাড় যেতে প্রধান সড়কের নিমাইকাশারী পর্যন্ত এবং চৌরাস্তা থেকে পূর্ব দিকে (দুই লেন) বটতলা সড়কের এক লেন দখল করে এ হাট বসানো হয়েছে।

এতে এই তিনটি সড়ক দিয়ে কোনো যানবাহন চলাচল করতে পারছে না। যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে, হেঁটে যেতেও চরম ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে পথচারীদের। সড়কের ওপর পশুর হাট বসানো সরকারিভাবে নিষেধ করা হলেও তা আমলে নেননি কাউন্সিলর বাদল। এতে চরম ক্ষোভ দেখা দিয়েছে জনমনে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে কাউন্সিলর বাদলের প্রতি চরম ক্ষোভ প্রকাশ করে অনেকেই বলেন, মাদানীনগর চৌরাস্তা থেকে নয়াআটি মুক্তিনগর বটতলা ক্যানেলপাড় হয়ে চিটাগাং রোডের এ সড়কটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ; কিন্তু কাউন্সিলর বাদল রাস্তাটি পুরোপুরি দখল করে পশুর হাট বসিয়েছেন। ফলে এ ওয়ার্ডের পশ্চিম ও উত্তর অংশের লোকজনের যাতায়াতের জন্য বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে হাটটি।

নিমাইকাশারী এলাকার বাসিন্দা ইউনুছ মিয়া জানান, সরকার রাস্তা করেছে জনগণের চলাচলের জন্য, কিন্তু কাউন্সিলর বাদল নিজের পকেট ভারী করার জন্য রাস্তা বন্ধ করে দিয়ে হাট বসিয়েছেন। নিমাইকাশারীর রাস্তারও একপাশ দখল করে রেখেছেন। প্রশাসন দেখেও না দেখার ভান করছে। এ বিষয়ে কাউন্সিলর শাহজালাল বাদলের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি সড়কের ওপর হাটের বিষয়ে কোনো মন্তব্য না করে বলেন, 'আমার সঙ্গে দেখা কইরেন।' এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী এএফএম এহতেশামুল হক বলেন, কাউন্সিলররা যেভাবে আমাদের অবগত করেছেন, আমরা সেভাবেই হাটের ইজারা দিয়েছি। তবে এ ব্যাপারে খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নেব। কেউ যদি রাস্তা দখল করে হাট বসিয়ে জনগণের ভোগান্তি সৃষ্টি করে তার বিরুদ্ধে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।