মাদ্রাসা শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ

প্রকাশ: ১৫ আগস্ট ২০১৯      

চুনারুঘাট (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে চাটপাড়া কামিল মাদ্রাসার ছাত্রীদেরকে শাসনের নামে গায়ে হাত দিয়ে যৌন হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেছে মাদ্রাসা শিক্ষকের বিরুদ্ধে। গত ৬ আগস্ট ওই মাদ্রাসার সহকারী বিপিএড শিক্ষক কাজী আবু সাঈদ সোহাগ মাদ্রাসায় প্রাইভেট পড়ানোর নামে অষ্টম শ্রেণি পড়ুয়া এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানি করেন। এরপরই ওই প্রতিষ্ঠানের অষ্টম শ্রেণির ১৬ জন ছাত্রী প্রতিষ্ঠানের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাওলানা রহমত আলী বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দেয়। এ ব্যাপারে অভিযোগকারী এক ছাত্রীর পরিবারের কাছে জানতে চাইলে তারা ঘটনার সত্যতাসহ যৌন হয়রানির কথা স্বীকার করে বলেন, ওই শিক্ষক স্থানীয় হওয়ায় কোনো ছাত্রী ও অভিভাবক তার বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে অভিযোগ করতে ভয় পেতেন। পরে বাধ্য হয়ে ছাত্রীরা ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ বরাবর অভিযোগ দিয়েছে।

মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ কাজী রহমত আলী লিখিত অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, 'আমি অভিযোগ পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ওই শিক্ষককে শ্রেণিকক্ষে ক্লাস নেওয়া থেকে বিরত রেখেছি এবং অভিযোগটি মাদ্রাসার সভাপতি হবিগঞ্জের এডিসি জেনারেল পাবেল রহমানকে অবহিত করেছি। এখন সভাপতি ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন।'

এ নিয়ে চাটপাড়া কামিল মাদ্রাসার সভাপতি হবিগঞ্জের এডিসি জেনারেল পাবেল রহমান বলেন, ঈদের ছুটিতে মাদ্রাসা বন্ধ থাকায় ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়া যাচ্ছে না। তবে মাদ্রাসা খোলার সঙ্গে সঙ্গেই বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তবে অভিযুক্ত শিক্ষক আবু সাঈদ সোহাগ বলেন, 'বিষয়টি সত্য নয়। আমি এলাকার স্থানীয় শিক্ষক হওয়ায় একটি কুচক্রী মহল আমাকে ফাঁসানোর জন্য এ ধরনের অভিযোগ এনেছে।