পরকীয়ার প্রতিবাদ করায় পিটিয়ে হত্যা, গ্রেফতার ২

প্রকাশ: ১৫ আগস্ট ২০১৯

গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

গফরগাঁওয়ে পরকীয়ার জের ধরে রহিদুল্লাহ ওরফে রহিদ (৫৫) নামে এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। গত মঙ্গলবার পাগলা থানাধীন দোবাষিয়া গ্রামে ঘটনাটি ঘটে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেছে। এ ঘটনায় পাগলা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। পুলিশ এজাহারনামীয় দু'জনকে গ্রেফতার করেছে।

উপজেলার দোবাষিয়া গ্রামের এক প্রবাসীর স্ত্রী মুক্তার সঙ্গে একই গ্রামের মৃত মকবুল হোসেনের ছেলে উছমান মিয়ার পরকীয়া সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এ নিয়ে পরিবার ও এলাকাবাসীর মধ্যে সমালোচনার পরিপ্রেক্ষিতে সালিশ বৈঠকের কথা ছিল। এ অবস্থায় মঙ্গলবার সকালে উছমান মিয়া গোপনে ওই গৃহবধূর কাছে যায়। বিষয়টি জানতে পেরে প্রবাসীর ভাই রহিদুল্লাহ ওরফে রহিদ ছোট ভাইয়ের বাড়িতে এসে উছমান মিয়াকে আসার কারণ জিজ্ঞাসা করে পরকীয়ার প্রতিবাদ করেন। এ নিয়ে বাক-বিতণ্ডার সময় উছমান মিয়া ক্ষিপ্ত হয়ে লাঠি দিয়ে রহিদুল্লাহকে পিটিয়ে হত্যা করে পালিয়ে যায়। পরে প্রতিবেশীরা এসে পাগলা থানায় খবর দেন। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় নিহতের মেয়ে শাহনাজ বেগম মঙ্গলবার রাতে পাগলা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ মঙ্গলবার রাতেই উছমান ও মুক্তাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে।

পাগলা থানার অফিসার ইনচার্জ শাহিনুজ্জামান খান বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলার ভিত্তিতে দু'জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।