দু'গ্রুপে পাল্টাপাল্টি হামলা, ভাংচুর

প্রকাশ: ১৫ আগস্ট ২০১৯

মুক্তাগাছা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

তুচ্ছ ঘটনায় সবুজ নামে এক যুবলীগ নেতাকে পিটিয়ে আহত করার ঘটনায় দু'পক্ষের মধ্যে চলছে পাল্টাপাল্টি হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা। এলাকায় চলছে দু'পক্ষের মধ্যে শক্তির মহড়া। এতে ছড়িয়ে পড়েছে কয়েকটি গ্রামের মানুষের মধ্যে টানটান উত্তেজনা। এর সঙ্গে আওয়ামী লীগের নেতারা দু'গ্রুপে অবস্থান নেওয়ায় উত্তেজনা তীব্র হয়ে উঠছে। যে কোনো সময় আরও বড় ধরনের ঘটনার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

শনিবার রাত ২টার দিকে উপজেলার মানকোন ইউনিয়নের চাপুড়িয়া গ্রামের চাপুড়িয়া মোড় দিয়ে যাচ্ছিল একটি মোটরসাইকেলে চড়ে তিন যুবক। তাদের বাড়ি পাশের ঘোগা ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে। ওই মোড় দিয়ে গভীর রাতে তিন যুবক যাওয়াতে চোর সন্দেহ হওয়ায় মানকোন ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহমুদুল হক সবুজ ও তার লোকজন মোটরসাইকেলটি থামাতে ইশারা দেয়। এতে তারা সাড়া দেয়নি। পরে সবুজ ও তার কয়েক সঙ্গী পেছনে তাড়া করে ওই মোটরসাইকেলটি ধরে ফেলে। এর পর মোটরসাইকেলটি রেখে তিন যুবককে তারা এলাকা থেকে তাড়িয়ে দেয়। পরের দিন রোববার সকালে এ ঘটনায় ধিতুযা গ্রামের ব্যবসায়ী এনামুল হক কালা যুবলীগ নেতা সবুজকে ডেকে আনেন চাপুড়িয়া মোড়ে। সেখানে তাদের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়।

এ ঘটনায় ওইদিন সন্ধ্যায় এনামুল হক কালার লোকজন যুবলীগ নেতা সবুজকে তার এলাকা থেকে ধরে নিয়ে চাপুড়িয়া মোড়ে বেধড়ক পেটায়। দীর্ঘ সময় আটকের পর সেখান থেকে থানা পুলিশ তাকে উদ্ধার করে মুক্তাগাছা হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ যুবলীগ নেতাকর্মীরা মঙ্গলবার ১১টার দিকে পাল্টা প্রতিশোধ নিতে কালার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালায়। বুধবার উত্তেজনার মধ্য দিয়েই ইউনিয়ন যুবলীগের উদ্যোগে চাপুড়িয়া মোড়ে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আহত যুবলীগ নেতার বড় ভাই জহিরুল ইসলাম বাবুল বলেন, তার ছোট ভাই চোর সন্দেহ করে মোটরসাইকেলটি আটক করে। পরের দিন থানায় মোটরসাইকেলটি সোপর্দও করে। এর পরও অন্যায়ভাবে তার ভাইকে ব্যবসায়ী কালা ও তার লোকজন ধরে এনে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে।

এ অভিযোগ অস্বীকার করে এনামুল হক কালা বলেন, সড়ক দিয়ে যাওয়ার সময় তিন যুবকের কাছ থেকে মোটরসাইকেলটি জোর করে সবুজ ও তার লোকজন আটকে রাখে। এর প্রতিবাদ করায় তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালানো হয়।

মুক্তাগাছা থানার ওসি (তদন্ত) জাহাঙ্গীর আলম বলেন, দুই গ্রুপের দুটি অভিযোগ তারা পেয়েছেন। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।