ধামরাইয়ের চরচৌহাট এলাকার বাদশা মিয়া নামে এক বৃদ্ধ ৩৫ বছরের এক শারীরিক প্রতিবন্ধী নারীকে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তবে স্থানীয় এক প্রভাবশালী ব্যক্তি বিষয়টি মীমাংসার আশ্বাস দিয়ে সোমবার অভিযুক্ত বাদশা মিয়াকে তার ঘরে ৬ ঘণ্টা আটকে রাখার পর ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

সরেজমিন জানা গেছে, ধামরাইয়ের উত্তর চৌহাট এলাকার এক শারীরিক প্রতিবন্ধী সোমবার পাশের চর চৌহাট গ্রামে ফুপা জসিম উদ্দিনের বাড়ির উদ্দেশে হেঁটে রওনা দেয়। উত্তর চর চৌহাট এলাকায় পৌঁছলে স্থানীয় সৌদি আরব প্রবাসী গৃহবধূর স্বামী বাদশা মিয়া ১০ টাকা দেওয়ার লোভ দেখিয়ে ওই প্রতিবন্ধী নারীকে তার নিজের বাড়ির একটি কক্ষে নিয়ে ধর্ষণ করে। বিষয়টি টের পেয়ে স্থানীয় কয়েকজন যুবক তাদের এক ঘরে আটক করে। পরে খবর পেয়ে স্থানীয় প্রভাবশালী আওলাদ হোসেন অভিযুক্ত বাদশা মিয়াকে তার বাড়িতে ৬ ঘণ্টা তালা লাগিয়ে আটকে রাখেন। এরপর মঙ্গলবার রাতে গ্রাম্য সালিশে বিষয়টি জুতাপেটার মাধ্যমে মীমাংসা করার আশ্বাস দিয়ে ধর্ষক বাদশা মিয়াকে ছেড়ে দেন।

প্রতিবন্ধী নারীর মা বলেন, আমি বাদশা মিয়ার কঠিন শাস্তি চাই। বাদশা মিয়ার বক্তব্য জানতে সোমবার বিকেলে তার বাড়িতে গিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি।

ধামরাই থানার ওসি দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, ধর্ষণের ঘটনা সালিশে মীমাংসাযোগ্য নয়। প্রচলিত আইনেই এর বিচার হওয়া উচিত। এ ব্যাপারে (সোমবার) রাতেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য করুন