বড়লেখায় পাওনা ৮৫ টাকা চাওয়ায় স্টু্কলছাত্রকে হত্যা

প্রকাশ: ২৩ মে ২০২০

বড়লেখা (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি

বড়লেখায় পাওনা ৮৫ টাকা চাওয়ায় জাকারিয়া হোসেন (১৮) নামে এক স্টু্কলছাত্রকে হত্যা করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার দক্ষিণভাগ দক্ষিণ ইউনিয়নের আরেঙ্গাবাদ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। জাকারিয়া ওই গ্রামের সালাহ উদ্দিনের ছেলে। সে চলতি বছর এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছিল।

পুলিশ ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, আরেঙ্গাবাদ গ্রামের সালাহ উদ্দিন তার বাড়ির পাশে একটি টং দোকানে পান-সিগারেট ও কাঁচামালের ব্যবসা করেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে জাকারিয়া বাবার বদলে দোকানে বসেছিল। এ সময় প্রতিবেশী তোতা মিয়া বাড়ি থেকে টাকা এনে দেওয়ার কথা বলে সিগারেটসহ ৮৫ টাকার মালপত্র বাকিতে নিয়ে যায়। বিকেল পর্যন্ত তোতা মিয়া ওই টাকা পরিশোধ না করায় রাতে তার বাড়িতে টাকা চাইতে যায় জাকারিয়া। এ সময় টাকা নেই জানিয়ে তাকে বিদায় করার চেষ্টা করে তোতা মিয়া। কিন্তু টাকা না নিয়ে গেলে বাবা তাকে বকা দেবেন জানিয়ে জাকারিয়া বারবার টাকা চাইছিল। তখন তোতা মিয়ার ছেলে প্রবাসফেরত আজিম উদ্দিন জাকারিয়ার সঙ্গে বাগবিতণ্ডায় জড়ায়। একপর্যায়ে সে জাকারিয়াকে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে। জাকারিয়াকে পাশের জুড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

বড়লেখা থানার ওসি মো. ইয়াছিনুল হক গতকাল শুক্রবার বলেন, ঘটনার পর আজিম উদ্দিন গা ঢাকা দিয়েছে। এ ঘটনায় এখনও মামলা হয়নি। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।