আশ্বাস দিয়েও ভর্তি নেওয়া হচ্ছে না করোনা রোগী

প্রকাশ: ৩০ জুন ২০২০

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

২২ জুন প্রভাবশালী এমপি শামীম ওসমানসহ জেলা প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ডে অবস্থিত প্রো-অ্যাকটিভ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ঘোষণা দিয়েছিল, তারা ওইদিন থেকেই করোনা রোগী ভর্তি নেবে। চিকিৎসা দেবে বিনা খরচে। তাদের ওই ঘোষণার এক সপ্তাহ পরও প্রতিষ্ঠানটি গতকাল সোমবার পর্যন্ত কোনো করোনা রোগী ভর্তি নেয়নি। নানা অজুহাতে তারা কালক্ষেপণ করছে।

তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি, আগামী ১ জুলাই বা তার আগে থেকেই তারা করোনা রোগী ভর্তি নেবেন। কিন্তু যে আইসিইউর জন্য এত আলোচনা-সমালোচনা হাসপাতালটিতে থাকা সেই আইসিইউ সুবিধা পাবেন না করোনা রোগীরা। অক্সিজেন সুবিধাসহ ১১ বেডের আইসোলেশন সেন্টারে চিকিৎসা দেওয়া হবে। তবে এজন্য নূ্যনতম মূল্য পরিশোধ করতে হবে রোগীকে।

গত ১৯ জুন প্রো-অ্যাকটিভ হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত রোগীদের ভর্তি না নিলে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে আলটিমেটাম দেন সংসদ সদস্য শামীম ওসমান।

গত ২২ জুন নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে এক রুদ্ধদ্বার বৈঠকে শামীম ওসমান ও জেলা প্রশাসনের সঙ্গে এক বৈঠকে উপস্থিত হন হাসপাতাল দুটির কর্মকর্তারা। পরে ওই দিনই এক সংবাদ সম্মেলনে শামীম ওসমান ঘোষণা দেন প্রো-অ্যাকটিভ ও আল বারাকা নামে বেসরকারি দুটি হাসপাতাল করোনায় আক্রান্ত রোগীদের সেবা দেবে। এ সময় প্রো-অ্যাকটিভ ও আল বারাকার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। তারাও গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে স্বীকার করেন, তারা ওই দিন থেকেই রোগী ভর্তি নেবেন; কিন্তু গতকাল পর্যন্ত প্রো-অ্যাকটিভ হাসপাতালে কোনো করোনা রোগীকে ভর্তি নেওয়া হয়নি।

প্রো-অ্যাকটিভ মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতালের হেড অব অপারেশন ডা. রাশিদুল হুদা বলেন, গত বৃহস্পতিবার সিভিল সার্জন ও করোনাবিষয়ক ফোকাল পারসরনকে চিঠি দিয়ে জানানো হয়েছে আমাদের ২ জন ডাক্তার, ২ জন নার্স ও ৩ জন আয়া/ওয়ার্ডবয়কে ট্রেনিং দেওয়ার জন্য। গত রোববার সিভিল সার্জন তাদের ট্রেনিং দিয়েছেন। সিভিল সার্জন যেদিন বলবেন, সেদিনই কার্যক্রম শুরু হবে।

নারায়ণগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. ইমতিয়াজ আহমেদ সোমবার বিকেলে এই প্রতিনিধিকে বলেন, গত রোববার প্রো-অ্যাকটিভ হাসপাতালে করোনা বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। তবে তারা সোমবার পর্যন্ত কোনো করোনা রোগী ভর্তি করেছেন কিনা সেটি তাকে জানানো হয়নি।