কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে প্রতিবছর মাঘ মাসের প্রথম দিন বসে 'ঠান্ডা কালীর মেলা'। কিন্তু গতকাল শুক্রবার এ মেলা না হওয়ায় ধরে রাখা যায়নি শত বছরের ঐতিহ্য। করোনা মহামারির কারণে উপজেলা প্রশাসন এ বছর বন্ধ রাখল ঠান্ডা কালীর মেলা।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, উপজেলার ঢালুয়া ইউনিয়নের মোগরা গ্রামের খোলা মাঠে বিশাল এলাকাজুড়ে শত বছরের বেশি সময় ধরে মেলাটি অনুষ্ঠিত হয়ে আসছিল। মেলায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ব্যবসায়ী ও দর্শনার্থীরা এসে আনন্দ উপভোগ ও কেনাকাটা করেন। মেলাটির প্রধান আকর্ষণ হলো বড় মাছ। কে কার আগে সবচেয়ে বড় মাছটি কিনবে, তা নিয়েই চলে প্রতিযোগিতা। এক দিনের এ মেলায় লক্ষাধিক মানুষের সমাগম ঘটে। এটি দক্ষিণ কুমিল্লার সবচেয়ে বড় মেলা। শিশু থেকে শুরু করে সব শ্রেণির মানুষ মেলায় তাদের পছন্দের জিনিস ক্রয় করতে আসেন।

স্থানীয় বাসিন্দা ষাটোর্ধ্ব ফখরুল ইসলাম বলেন, জন্মের পর থেকে দেখছি পহেলা মাঘ মেলা অনুষ্ঠিত হতে। এবারই প্রথম মেলাটি হলো না। মেলায় কয়েক কোটি টাকার বেচাকেনা হয় বলে জানান তিনি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লামইয়া সাইফুল জানান, মেলা আয়োজন করতে পারলে ইজারা বাবদ সরকারে রাজস্ব আয় হতো। মানুষের সুরক্ষার কথা চিন্তা করে এবারের মেলা বন্ধ রাখা হয়েছে।

মন্তব্য করুন