রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের বারাদী গ্রামে গত বুধবার রাতে চুরির অভিযোগে পাঁচ যুবককে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার তাদের পুলিশ থানা হেফাজতে নেয়। তারা হলো- মিজানুর রহমান, সবুজ খান, আলেক সরদার, রেজাউল ইসলাম ও আরজু মণ্ডল। ওই গ্রামের আফসার মণ্ডল তাদের রাতভর নির্যাতন করেছেন বলে জানা গেছে।

আফসার মণ্ডলের দাবি, বুধবার রাতে কোরআন মাহফিলে শরিক হতে বাড়ির সবাই পার্শ্ববর্তী মসজিদে যান। রাত ১০টার দিকে তার ছেলে সাগর বাড়ি ফেরার সময় মিজানকে বাড়ির সামনে ঘোরাফেরা করতে দেখে। তার গতিবিধি সন্দেহজনক হওয়ায় আটক করা হয়। পরে মিজান চুরির সঙ্গে জড়িত চারজনের নাম বললে তাদের বাড়ি থেকে ধরে আনা হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে পাঁচজনকেই পুলিশে হস্তান্তর করা হয়েছে। ওই পাঁচজন তার বাড়ি থেকে টাকা ও স্বর্ণালংকার চুরি করেছে বলে জানান তিনি।

তবে অভিযুক্ত মিজানুর রহমানের দাবি, তিনি ওই বাড়ির পেছনে বসে মাদক সেবন করছিলেন। তাকে মারধর করায় ভয়ে অপর চারজনের নাম বলেছেন।

আলেক সরদার জানান, তিনি মিষ্টির দোকানে কাজ করেন। অথচ বাড়ি থেকে ডেকে এনে চুরির অভিযোগে মারধর করা হয়েছে। সবুজ খানের বাবা বরকত আলী খান অভিযোগ করে বলেন, রাত ২টার দিকে বাড়ি থেকে ছেলেকে ডেকে নিয়ে চোর অপবাদ দিয়ে রশি দিয়ে বেঁধে রেখে নির্যাতন চালিয়েছে।

বালিয়াকান্দি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারেকজ্জামান জানান, এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে। পুলিশ বিষয়টি  তদন্ত করছে।

মন্তব্য করুন