সরকারি বাড়ি দেওয়ার নামে প্রতারণা

প্রকাশ: ২৭ জানুয়ারি ২০২১

সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া সরকারি বাড়ি ও চাকরি পাইয়ে দেওয়া, জেলে থাকা আসামিদের ছাড়িয়ে আনার কথা বলে প্রায় কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। রিফাতুল ইসলাম ইলিয়াছ নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে এ প্রতারণার অভিযোগ করেন ভুক্তভোগীরা। তবে নারী নির্যাতন মামলায় মঙ্গলবার তাকে জেলে যেতে হয়েছে। তবে এই প্রতারকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পুলিশকে বলেছেন সংসদ সদস্য দিদারুল আলম।

পুলিশ বলছে, প্রতারণার বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে তার বিরুদ্ধে নারী নির্যাতন মামলায় ওয়ারেন্ট থাকায় আটক করা হয়েছে। সে উপজেলার বাড়বকুণ্ড ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা সিরাজুল মোস্তফার ছেলে।

বাড়বকুণ্ড ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ছাদাকাত উল্লাহ

মিয়াজি বলেন, সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া বাড়ি পাইয়ে দেওয়ার

কথা বলে ১৭ থেকে ৩৩ হাজার

৫০০ টাকা করে নিয়েছেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন- বাড়বকুণ্ডের মান্দারিটোলার মঞ্জুরা বেগম, মোহাম্মদ হানিফ, মাহামুদাবাদের রৌশন আরা বেগম, দারালিয়াপাড়ার মোহরম আলী, মধ্যম মাহামুদাবাদের সাদ্দাম হোসেন প্রমুখ।

এ ছাড়া চাকরি দেওয়ার কথা বলে মান্দারিটোলা এলাকার এমরুল হুদা ভুট্টুর কাছ থেকে এক লাখ ৮০ হাজার টাকা, মীরেরহাট এলাকার মোহাম্মদ ইছহাক মুমিনের কাছ থেকে এক লাখ ৫০ হাজার টাকা, হাতিলোটা এলাকার আবুল খায়ের কাছ থেকে এক লাখ ৭০ হাজার টাকা, উত্তর মাহামুদ এলাকার মোহাম্মদ

হাসানের কাছ থেকে এক লাখ ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। এ ছাড়া আরও ২০ থেকে ২৫ জনের অধিক প্রতারণার শিকার নারী-পুরুষ ইউনিয়ন পরিষদে টাকা ফেরত পাওয়ার জন্য আবেদন করেছেন। স্থানীয় সংসদ সদস্য দিদারুল আলমের নাম ভাঙিয়ে এই প্রতারণা করছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

সীতাকুণ্ড যুবাইদিয়া মহিলা মাদ্রাসার অধ্যক্ষ (বরখাস্ত) নুরুল কবির বলেন, 'গত বছর একটি মামলায় জেলে যেতে হয় আমাকে। এ সময় রিফাত স্থানীয় সংসদ সদস্য দিদারুল আলমের নাম ভাঙিয়ে আমাকে জামিন করে দেওয়ার কথা বলে প্রায় দেড় লাখ টাকা নেয় আমার স্ত্রীর থেকে। আমি জেলে থাকার কারণে আমার স্ত্রীর সরলতার

সুযোগ নিয়ে সে (ইলিয়াছ) এই প্রতারণা করেছে। পরে এ বিষয়ে একটি প্রতারণা মামলা করেন বলে জানান তিনি।

সীতাকুণ্ড থানার সুমন বণিক বলেন, নারী ও শিশু নির্যাতনের একটি সিআর ওয়ারেন্ট থাকায় রিফাতকে সোমবার বিকেলে উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মঙ্গলবার তাকে জেলহাজতে

পাঠানো হয়েছে। প্রতারণার অভিযোগগুলো খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

স্থানীয় সংসদ সদস্য দিদারুল আলম বলেন, ইলিয়াছ একজন প্রতারক। স্থানীয় বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে প্রতারণা করে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে পুলিশকে বলেছি।