আর কত বয়স হলে ভাতা জুটবে আছিয়ার

প্রকাশ: ২৭ জানুয়ারি ২০২১

দশমিনা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি

বয়সের ভারে ন্যুব্জ আছিয়া বেগম। বার্ধক্যজনিত নানা রোগে ভুগছেন। চিকিৎসাসেবা দূরের কথা, প্রতিদিন তিনবেলা খাবার জোটে না তার। জীবনের পড়ন্ত বেলায় একটু সচ্ছলতার আশায় বয়স্কভাতা কার্ডের জন্য ধরনা দিয়েছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের কাছে। প্রতিশ্রুতি দিলেও এখনও জোটেনি ভাতা কার্ড।

আছিয়া বেগমের বসতি পটুয়াখালীর দশমিনা উপজেলার রণগোপালদী ইউনিয়নের দক্ষিণ রণগোপালদী গ্রামে। জাতীয় পরিচয়পত্র অনুযায়ী তার জন্ম ১৯৩৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি। নিয়ম অনুযায়ী, ৬২ বছর বয়সে তার বয়স্ক ভাতা পাওয়ার কথা। অথচ ৮২ বছর বয়সেও তার ভাগ্যে বয়স্কভাতা জোটেনি।

আছিয়া বেগমের স্বামী মোহাম্মদ হাওলাদার মারা গেছেন প্রায় ২৫ বছর আগে। সহায়-সম্পদ বলতে কিছু নেই তার। একমাত্র ছেলে বিয়ে করে স্ত্রী-সন্তান নিয়ে অন্যত্র বসবাস করেন। মেয়ে পারভীন বেগমের বাসায় জামাইয়ের সামান্য আয়ে চলছে বেঁচে থাকার সংগ্রাম।

ইউপি চেয়ারম্যান সিকদার নাসির উদ্দিন বলেন, বৃদ্ধা তার কাছে ভাতার জন্য আসেননি।

ইউএনও তানিয়া ফেরদৌস বলেন, ভাতার আবেদন করলে বিবেচনা করা হবে।