সাকিবেরও ইচ্ছা করে ফুল দিতে

প্রকাশ: ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২১

রাজবাড়ী প্রতিনিধি

সাকিবেরও ইচ্ছা করে ফুল দিতে

পতাকা বিক্রির জন্য শহীদ মিনারের সামনে শিশু সাকিবউল্লাহ- সমকাল

সাকিবউল্লাহর বয়স নয় বা দশ বছর। এ বয়সে স্কুলে যাওয়ার কথা তার। স্কুলে যায়ও সে। তবে দরিদ্র বাবা-মায়ের সংসারে অর্থের জোগান দিতেই পতাকা বিক্রি করছে। গতকাল রোববার শহীদ দিবসে রাজবাড়ী শহীদ খুশী রেলওয়ে ময়দানে অবস্থিত শহীদ মিনার চত্বরে ঘুরে ঘুরে পতাকা বিক্রি করতে দেখা যায় তাকে।

সাকিবউল্লাহ জানায়, তার বাড়ি ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলায়। স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ে চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ে সে। তারা ছয় ভাইবোন। তার বাবা ক্ষেতে-খামারে কাজ করেন। মহামারী করোনার কারণে তার বাবার আয়-রোজগার প্রায় বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। তারও স্কুল বন্ধ। এ কারণে মাঝেমধ্যে কাজের সন্ধানে বেরিয়ে পড়ে নানা জায়গায়।

একুশে ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে নগরকান্দা থেকে তিন দিন আগে এসেছে রাজবাড়ীতে হাত-পতাকা বিক্রি করতে। তার মতো শিশুরা যখন পতাকা কিনতে আসে তখন অনেক কিছু মনে আসে তার।

সাকিবউল্লাহর ভাবনাটা এমন, পরিবার সচ্ছল হলে হয়তো কষ্ট করে পতাকা বিক্রি করতে হতো না। হেসেখেলে পড়ালেখা করতে পারত। খেলার সময় খেলত। একুশে ফেব্রুয়ারি শহীদ দিবস। এটাও সে জানে। তারও ইচ্ছে করে শহীদ মিনারে ফুল দিতে।