মুক্তাগাছা

সড়কের মাঝে বিদ্যুতের খুঁটি দুর্ঘটনার আশঙ্কা

প্রকাশ: ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২১

শফিক সরকার, মুক্তাগাছা (ময়মনসিংহ)

সড়কের মাঝে বিদ্যুতের খুঁটি দুর্ঘটনার আশঙ্কা

মুক্তাগাছা পৌরসভার আটআনি বাজার সড়কে পল্লী বিদ্যুতের খুঁটি- সমকাল

দীর্ঘদিনেও সড়কের মাঝ থেকে বিদ্যুতের খুঁটি সরানো হয়নি। যানবাহন চলাচলে বাধাগ্রস্ত হলেও এসব খুঁটি সরানোর উদ্যোগ নেয়নি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি। খুঁটির কারণে সড়কে যানজটও সৃষ্টি হচ্ছে। রয়েছে বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা। অথচ বছরের পর বছর ধরে সড়কেই রয়ে গেছে বিদ্যুতের খুঁটিগুলো। পৌরসভা থেকে বারবার চিঠি দেওয়ার পরও খুঁটিগুলো সরানোর উদ্যোগ নেয়নি সমিতি কর্তৃপক্ষ।

ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা পৌরসভার একটি ব্যস্ততম সড়কের নাম আটআনি বাজার সড়ক। পৌরসভা থেকে বড় মসজিদ হয়ে সড়কটি চলে গেছে আটআনি বাজারের দিকে। পৌরসভা থেকে আটআনিবাজার পর্যন্ত সড়কটি প্রায় এক কিলোমিটারের পথ। এক সময় সড়কটি ছিল ছোট আকারে। পরবর্তী সময়ে চার বছর আগে পুরো সড়কে কার্পেটিং করে সড়কটি বাড়ানো হয়। প্রায় দুই যুগ আগে সড়কের কার্পেটিংয়ের পাশে ময়মনসিংহ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর বিদ্যুতের খুঁটিগুলো বসানো হয়েছিল। এখন সড়ক বড় হওয়ায় খুঁটিগুলো আগের স্থানেই রয়ে গেছে। এতে খুঁটিগুলো সড়কের প্রায় মাঝামাঝি স্থানে এসে পড়েছে। সড়ক বড় হলেও খুঁটিগুলো সড়ক থেকে সরানো হয়নি। এতে ব্যস্ততম সড়কে যানবাহন চলাচলে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে বিদ্যুতের খুঁটিগুলো। এতে দীর্ঘ যানজটও সৃষ্টি হয়। বিদ্যুতের খুঁটিতে লেগে দুর্ঘটনাও ঘটছে প্রায়ই। এছাড়া সড়কের দুই পাশের ব্যবসায়ীদের নানা সমস্যার সৃষ্টি করছে এসব বৈদ্যুতিক খুঁটি। দীর্ঘদিন ধরে সড়কে চলাচলে বাধা সৃষ্টি করলেও খুঁটিগুলো সরানোর উদ্যোগ নেয়নি ময়মনসিংহ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর কর্তৃপক্ষ। পৌরসভা থেকে খুঁটিগুলো সরাতে বিভিন্ন সময় লিখিত আবেদন করেও সাড়া মেলেনি বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের।

সড়ক-সংলগ্ন সারপট্টি এলাকার বঙ্গবন্ধু শ্রমিক হোটেলের মালিক সুলতার মিয়া বলেন, সড়কের প্রায় অর্ধেকজুড়ে বিদ্যুতের খুঁটি থাকায় যানবাহন চলাচলে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। তাদেরও নানা সমস্যায় পড়তে হচ্ছে এসব খুঁটির কারণে। এছাড়া খুঁটিতে লেগে প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনা। এ জন্য দ্রুত সড়ক থেকে খুঁটিগুলো সরানোর আহ্বান জানান তিনি।

রিকশাচালক আবেদ আলী বলেন, ময়মনসিংহ-টাঙ্গাইল সড়কে যানবাহন নিয়ে ওঠার সময় বাধা হয়ে দাঁড়ায় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির খুঁটিগুলো। খুঁটির জন্য তাদের রিকশা চালাতেও সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। এতে কালা মিয়া হোটেলের সামনে প্রায়ই দীর্ঘ যানজট লেগে থাকে।

সড়কে খুঁটির কারণে যানবাহন চলাচলে সমস্যার কথা স্বীকার করে মুক্তাগাছা পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী মোখলেছুর রহমান বলেন, এক সময় সড়কটি ছোট ছিল। তখন কোনো সমস্যা হয়নি বিদ্যুতের খুঁটিতে। এখন সড়কটি বড় হওয়ায় খুঁটিগুলো নানা সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিষয়টি বিভিন্ন সময় লিখিতভাবে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি কর্তৃপক্ষকে জানানোর পরও খুঁটিগুলো সড়ক থেকে সরানোর উদ্যোগ নেয়নি।

ময়মনসিংহ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর জেনারেল ম্যানেজার আখতার হোসেন বলেন, পৌরসভার নতুন মেয়রের সঙ্গে কথা বলে খুঁটিগুলো সরানোর ব্যবস্থা  নেওয়া হবে। এছাড়া ঠিকাদারদেরও উচিত ছিল সড়ক সংস্কার করার সময় খুঁটিগুলো সরিয়ে কাজ করার, কিন্তু তারা তা করেননি।

মুক্তাগাছা পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র বিল্লাল হোসেন সরকার বলেন, সড়কের মাঝখানে খুঁটিগুলো হওয়ায় যান চলাচলে সমস্যা হচ্ছে। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।