কালিয়াকৈর উপজেলার রুমাইসা জেনারেল হসপিটাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারে সোমবার রাতে ভর্তিকৃত রোগীর অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে ১০ শিক্ষার্থী আহত হন। আহতরা উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। ওই হসপিটাল ভবনের অষ্টমতলায় এ ঘটনা ঘটেছে।

রুমাইসা জেনারেল হসপিটাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টারের দ্বিতীয় তলায় ভর্তি ছিলেন মো. জালাল উদ্দিন ছেলে রাকিব আহমেদ লাকির স্ত্রী ঊর্মি। একই বিল্ডিংয়ে অষ্টম তলায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরা আবাসিকে থাকেন। ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা রাতে সরকারিভাবে সব পরীক্ষা বন্ধের খবর পেয়ে হৈচৈ শুরু করেন। এ সময় ওই রোগীর স্বামী রাকিব আহমেদ লাকি সেখানে গিয়ে শিক্ষার্থীদের হুলস্থুল করতে নিষেধ করেন। এরপর ওই রোগীর স্বামী কয়েক মিনিট পরে ওই হসপিটালের কর্মচারীদের নিয়ে শিক্ষার্থীদের কক্ষে প্রবেশ করে তর্কে জড়িয়ে পড়েন। এক পর্যায় শিক্ষার্থীদের এলোপাতাড়ি মারধর করতে থাকেন। এ সময় শিক্ষার্থীরাও তাদের ওপর হামলার চেষ্টা করেন। এতে দুই গ্রুপে সংঘর্ষ হয়। এতে ১০ শিক্ষার্থী আহত হন। খবর পেয়ে অন্যান্য কক্ষের শিক্ষার্থীরা একত্রিত হয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। এ সময় শিক্ষার্থীদের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করে। পরে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা হসপিটালে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করেন।

মন্তব্য করুন