কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি মো. রনির বিরুদ্ধে ধর্ষণের চেষ্টা ও নির্যাতনের অভিযোগে আদালতে মামলা করেছিলেন এক প্রবাসীর স্ত্রী। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে তদন্তের জন্য জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের নারী ও শিশু নির্যাতন সেলকে নির্দেশ দেন। ২৭ ফেব্রুয়ারি বাদী ও অভিযুক্তদের ওই সেলে হাজির হওয়ার জন্য নোটিশ দেয় পুলিশ।

এরই মধ্যে ছাত্রলীগ নেতা রনির বিরুদ্ধে ফের ওই প্রবাসীর স্ত্রীর ওপর হামলার অভিযোগ উঠেছে। তিনি তাকে মারধর করে গুরুতর আহত করেছেন। গত মঙ্গলবার রাতে জেলার সদর উপজেলার বারপাড়া এলাকার কৃষ্ণপুরে এ হামলা ও মারধরের ঘটনা ঘটে। আহত নারীকে কুমিল্লা জেনারেল (সদর) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় রনি ও তার পরিবারের লোকজনের বিরুদ্ধে কোতোয়ালি থানায় আরেকটি অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী। অভিযুক্ত রনি ওই এলাকার সর্দার বাড়ির আবু তাহেরের ছেলে।

গতকাল দুপুরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ওই নারী জানান, মামলা করার পর থেকে রনি তাকে একের পর এক মানসিক অত্যাচার করছেন। ওই নারীর মা জানান, মেয়েকে বাড়ির সামনে পেয়ে তার ওপর হামলা চালানো হয়। অভিযোগ অস্বীকার করে ছাত্রলীগ নেতা রনি বলেন, ওই নারীর কাজই হলো মানুষকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো। তদন্তে সব সত্য বেরিয়ে আসবে।

কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি আনোয়ারুল হক বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনাটি তদন্ত করে দেখছি।

মন্তব্য করুন