কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন হত্যার বিচার চেয়ে মানববন্ধনে কাঁদলেন দেলোয়ারের স্ত্রী ও স্বজন। এ সময় উপস্থিত কেউ তাদের চোখের পানি ধরে রাখতে পারেননি। দেড় ঘণ্টাব্যাপী এই মানববন্ধনে নিহত দেলোয়ারের স্ত্রীর সঙ্গে তাদের দুই শিশুসন্তান রাফসানুল ওয়াছিদ রাইয়ান (৭) ও সাফোয়ান ওয়াছিদ (৪) বাবার হত্যাকারীদের বিচার দাবিতে পোস্টার হাতে রাস্তায় দাঁড়িয়ে ছিল। ২০১৮ সালের ২৬ নভেম্বর রাতে নগরীর শামবক্সি (ভল্লবপুর) সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে মাথায় গুলি করে দেলোয়ারকে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা।

বুধবার নগরীর কুমিল্লা-সোয়াগাজী বাইপাস সড়কের শামবক্সি এলাকায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশে সহস্রাধিক নারী-পুরুষ অংশ নেন। তারা দেলোয়ার হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী কাউন্সিলর আবদুস সাত্তার, শীর্ষ সন্ত্রাসী রেজাউলসহ জড়িতদের গ্রেপ্তার ও ফাঁসির দাবি জানান। স্ত্রী জিলকজ আক্তার ছাড়াও মানববন্ধনে বক্তব্য দেন নিহত দেলোয়ারের ভাই ও মামলার বাদী শাহাদাত হোসেন নয়ন, শাশুড়ি নুরুন্নাহার বেগম, যুবলীগ নেতা মোরশেদুল আলম, ইঞ্জিনিয়ার জাকির হোসেন, আবুল কাশেম, আবুল হোসেন, জহিরুল ইসলাম প্রমুখ।

দেলোয়ারের স্ত্রী জিলকজ বলেন, খুনিদের হুমকিতে সন্তানদের নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন। এ জন্য সন্ত্রাসীদের ভয়ে বাবার বাসায় বসবাস করছেন। তিনি এ ঘটনায় থানায় জিডি করতে গিয়েছিলেন। তবে পুলিশ জিডি নেয়নি।

মন্তব্য করুন