পলাশে মো. ইয়াকুব মিয়া (১৬) নামে এক অটোরিকশা চালককে হত্যার ঘটনায় সন্দেহজনকভাবে আল-আমিন ও পাবেল মিয়া নামে দুই যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পলাশ থানা পুলিশ।

গতকাল রোববার সদর উপজেলার রাজাদী গ্রামে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। আটককৃত আল-আমিন সদর উপজেলার রাহাদী গ্রামের চাঁন মিয়ার ছেলে ও পাবেল মিয়া একই গ্রামের বাদশা মিয়ার ছেলে।

পলাশ থানা পুলিশ ও নিহতের পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়নের ধনাইরচর গ্রামের মো. ইলিয়াস মিয়ার ছেলে নিহত ইয়াকুব মিয়া অটোরিশকা চালক ছিলেন। ১৭ ফেব্রুয়ারি ইয়াকুব মিয়ার অটোরিকশা করে আটককৃত আল-আমিন ও পাবেল মিয়া ঘুরতে বের হয়। কিন্তু রাত প্রায় সাড়ে ৮টা পর্যন্ত ঘোরার পরও চালক ইয়াকুব মিয়ার অটো ভাড়া পরিশোধ না করে উল্টো ইয়াকুব মিয়াকে মারধর করে তার কাছ থেকে ৪০০ টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায় আল-আমিন ও পাবেল মিয়া। পরে রাতে বাড়ি ফেরার পর চালক ইয়াকুব মিয়া ঘটনাটি তার মা আমেনা বেগমকে অবগত করেন।

এরপর গত ১৮ ফেব্রুয়ারি প্রতিদিনের মতো ইয়াকুব মিয়া তার অটোরিকশা নিয়ে বের হওয়ার পর থেকে তিনি নিখোঁজ হন। পরে ২২ ফেব্রুয়ারি ইয়াকুবের মা বাদী হয়ে পলাশ থানায় নিখোঁজের একটি জিডি করেন।

এদিকে নিখোঁজের ১১ দিন পর শনিবার গজারিয়া ইউনিয়নের দড়িরচর এলাকার হারিধোয়া নদীতে লাশ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করার পর নিহত ইয়াকুব মিয়ার পরিবার তার পরিচয় শনাক্ত করে।

এ ঘটনায় শনিবার রাতেই নিহত ইয়াকুব মিয়ার মা বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মন্তব্য করুন