পাবনা জেলা যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান আলী হত্যাকাণ্ডে জড়িত ইব্রাহিম প্রামাণিক নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। মঙ্গলবার আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয় ইব্রাহিম। পিবিআই পাবনার পুলিশ সুপার ফজলে এলাহী এ তথ্য জানান।

ইব্রাহিমের জবানবন্দি অনুযায়ী, শহরের শালগাড়িয়া গোরস্তানপাড়ার তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে শাহজাহান আলীর সঙ্গে একই এলাকার এক নারীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। কয়েক দিন আগে তাদের সে সম্পর্ক ভেঙে যায়। ফলে ওই নারী বদলা নিতে শাহজাহানকে হত্যার পরিকল্পনা করে। এ জন্য সদর উপজেলার পেশাদার খুনি ইব্রাহিম প্রামাণিকসহ ৭-৮ জনকে ভাড়া করে। গত ৩১ মার্চ সন্ধ্যায় শাহজাহানকে অপহরণ করে তারা। পরে তাকে আটঘরিয়ায় ইব্রাহিমের এক আত্মীয়ের বাড়িতে নিয়ে খাবারের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে। লাশ গুম করার উদ্দেশ্যে বস্তাবন্দি করে আটঘরিয়া থানার গঙ্গারামপুর হাফিজিয়া মাদ্রাসা সংলগ্ন কানু মণ্ডলের ছেলে কাশেমের বাড়ির সেপটিক ট্যাংকে ফেলে খড়-কুটো দিয়ে ঢেকে রাখা হয়। এর পর ইব্রাহিম ঢাকা এবং বাকি আসামিরা অন্যত্র পালিয়ে যায়। ওই নারী বিবাহিত এবং তার একটি সন্তান আছে বলে জানা গেছে।

পিবিআই পুলিশ সুপার ফজলে এলাহী বলেন, অনৈতিক সম্পর্কের কারণেই শাহজাহানকে খুন করা হয়। তিনি বলেন, ওই নারী এবং ইব্রাহিমের মোবাইল ফোন ট্র্যাকিং করে গত ১১ এপ্রিল আটঘরিয়া উপজেলার ডেঙ্গারগ্রামের ইব্রাহিমকে ঢাকার সাভার থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। গতকাল আদালতে হত্যকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দেয়। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই সবুজ আলী বলেন, ওই নারীকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য করুন