হ দেওয়ানগঞ্জ (জামালপুর) সংবাদদাতা

দেওয়ানগঞ্জে রাষ্ট্রীয় খেতাবপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. এনায়েত হোসেন বীরপ্রতীক অবশেষে মওকুফ পেলেন প্রতিমাসে ২০০ ইউনিট বিদ্যুৎ বিল। সরকার জানুয়ারি ২০০০ থেকে বিদ্যুৎ এলাকায় বসবাসকারী রাষ্ট্রীয় সম্মানী ভাতাপ্রাপ্ত যোদ্ধাহত ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারবর্গের মাসিক ২০০ ইউনিট পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিল মওকুফের ঘোষণায় এ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হওয়ায় সমকালে প্রতিবেদন প্রকাশের পর তিনি এ বিদ্যুৎ বিল মওকুফ পেলেন।

জানা গেছে, মো. এনায়েত হোসেন বীরপ্রতীক উপজেলার চিকাজানীর বাসিন্দা। মুক্তিযুদ্ধে তিনি ১১ নং সেক্টরের অধীনে যুদ্ধ করে বিশেষ কৃতিত্বের জন্য বীরপ্রতীক উপাধি লাভ করেন। বর্তমানে তিনি যোদ্ধাহত হয়ে অচল। সরকার ঘোষিত যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে মাসে ২০০ ইউনিট বিদ্যুৎ বিল মওকুফের জন্য পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির চেয়ারম্যান ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বরাবর আবেদন করেও বিদ্যুৎ বিল মওকুফ পাননি। এ নিয়ে সমকালে ২০ জানুয়ারি ২০২১ 'বীরপ্রতীকের বিদ্যুৎ বিল মওকুফ হবে কবে' শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। প্রতিবেদন প্রকাশের পর জেলা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার মো. আলমগীর হোসেন তাকে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বরাবর পুনরায় আবেদন করতে পরামর্শ দেন। সে মতে তিনি মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বরাবর মাসে ২০০ ইউনিট বিদ্যুৎ বিল মওকুফের জন্য আবেদন করলে আবেদনটি আমলে আনেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়। আবেদনের পর প্রতিমাসে তার ২০০ ইউনিট বিদ্যুৎ বিল মওকুফ ঘোষণা করে জেলা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিকে নির্দেশনা প্রদান করেন।

যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. এনায়েত হোসেন বলেন, সমকালে প্রতিবেদন প্রকাশের পর জেলা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজারের কথা মতে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বরাবর আবেদনের পর আমার নামে প্রতিমাসে ২০০ ইউনিট বিদ্যুৎ বিল মওকুফ হয়।\হজেলা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার মো. আলমগীর হোসেন বলেন, রাষ্ট্রীয় খেতাবপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. এনায়েত হোসেন বীরপ্রতীকের প্রতি মাসে ২০০ ইউনিট বিদ্যুৎ বিল মওকুফের জন্য সংশ্নিষ্ট মন্ত্রণালয় থেকে মার্চে নির্দেশনা পেয়েছি। সে অনুযায়ী তিনি মার্চের ১০ তারিখ থেকে এ সুবিধা পাবেন।

মন্তব্য করুন