ধোবাউড়া উপজেলায় কৃষকদের জন্য প্রণোদনার সার ও বীজ পাচার করার সময় আটক করেছে জনতা। পরে কৃষি অফিসের কর্মকর্তারা ও পুলিশ গিয়ে ঘটনাস্থল থেকে বীজ ও সারগুলো উদ্ধার করেন। কৃষি বিভাগ বলছে, প্রকৃত কৃষকদের দেওয়া হয়েছিল সার ও বীজগুলো। বুধবার সার ও বীজ কোথায় যাচ্ছিল এবং কারা জড়িত তাদের শনাক্ত করতে উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. সাইফুল ইসলামকে প্রধান করে উপজেলা প্রকৌশলী ও কৃষি কর্মকর্তাকে সদস্য করে তদন্ত কমিটি করা হয়।\হপ্রান্তিক কৃষকদের আউশ প্রণোদনা হিসেবে গত মঙ্গলবার ধোবাউড়া সদর ইউনিয়নের ১০৫ জন কৃষকের মাঝে প্রণোদনা বিতরণ করা হয়। ৫ কেজি করে বীজ ধান ও দুই প্রকারের ৩০ কেজি সার বিতরণ করা হয় প্রত্যেক কৃষকের মাঝে। বিকেল ৫টার দিকে চার রিকশাভর্তি সার ও বীজ সরকারি গোডাউন থেকে উপজেলা সদর বাজারে যাওয়ার পথে স্থানীয় মানুষ সেগুলো আটক করে। খবর পেয়ে পুলিশ ও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা গিয়ে বীজ ধান ও সারগুলো উদ্ধার করে নিয়ে যান।

উদ্ধার হওয়া ৩৬ প্যাকেট (প্রতি প্যাকেটে ১০ কেজি) বীজ ধান ও ২৮ বস্তা সার। উদ্ধার হওয়া ধানবীজ অন্তত ৭২ জন কৃষকের মধ্যে বিতরণ করার কথা ছিল। ২৮ বস্তা সার পেতেন ৩৬ জন কৃষক। প্রকৃত কৃষকদের মাঝে সার ও বীজ বিতরণ না করে অসাধু চক্রের মাধ্যমে সেগুলো পাচার করা হচ্ছিল বলে অভিযোগ করেন স্থানীয়রা।\হইউএনও রাফিকুজ্জামান বলেন, তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য করুন