চকলেট কিনে দেওয়ার কথা বলে নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী থেকে নাজমুল হাসান মেজবা নামের আড়াই বছর বয়সী এক শিশুকে অপহরণ করে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ চাওয়ার অভিযোগে দুই অপহরণকারীকে আটক করেছে পুলিশ। সেই সঙ্গে অপহৃত শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়।

সোমবার ভোরে লক্ষ্মীপুর সদর থানার বাঞ্ছানগর গ্রামের বেড়িবাঁধের পাশ থেকে অপহৃত শিশুকে উদ্ধার এবং দুই অপহরণকারীকে আটক করে পুলিশ। আটকরা হলো- উপজেলার ৫ নম্বর অম্বরনগর ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের মধ্য অম্বরনগর গ্রামের চৌকিদার বাড়ির জহির চৌধুরীর ছেলে রাসেল ও লক্ষ্মীপুর জেলার বাঞ্ছানগর গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে মাসুদ আদনান।

রোববার সকালে উপজেলার অম্বরনগর গ্রামে এ অপহরণের ঘটনা ঘটে। সোমবার দুপুর ১টার দিকে নোয়াখালী পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন তার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এসব তথ্য জানান।

পুলিশ সুপার জানান, অপহরণকারী রাসেল শিশুটির দূর সম্পর্কের আত্মীয়। তাই তার যাওয়া-আসা ছিল শিশুটির বাড়িতে। রোববার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে রাসেল শিশুটিকে কোলে নিয়ে দোকানে চকলেট কিনতে যাওয়ার কথা বলে পালিয়ে যায়। এরপর অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে শিশুটির মায়ের মোবাইল ফোনে কল করে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। টাকা না দিলে এবং এ ঘটনা পুলিশকে জানালে মেজবাকে হত্যা করা হবে বলে হুমকি দেওয়া হয়। এক পর্যায়ে শিশুটির পরিবার ঘটনাটি সোনাইমুড়ী থানা পুলিশকে অবহিত করে। অভিযোগ পেয়ে সোনাইমুড়ী থানার ওসি মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল সোমবার ভোর ৫টার দিকে লক্ষ্মীপুর সদর থানা পুলিশের সহায়তায় লক্ষ্মীপুর সদর থানা এলাকার বাঞ্ছানগর গ্রামের বেড়িবাঁধের পাশে অপহরণকারীর সহযোগী মাসুদ আদনানের (২৪) বসতবাড়ির একটি ঘর থেকে শিশুটিকে উদ্ধার এবং দুই অপহরণকারীকে আটক করে।

সোনাইমুড়ী থানার ওসি গিয়াস উদ্দিন জানান, এ ঘটনায় সোনাইমুড়ী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে সোমবার দুপুরে মামলা হয়েছে। অপহরণকারীদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য করুন