যশোরের অভয়নগর উপজেলার মশরহাটী গ্রামে ভাড়াটিয়া এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মামলার পর অভিযুক্ত বাড়িওয়ালা বিটু আহম্মেদকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মামলা সূত্রে জানা যায়, কয়েক বছর আগে ওই নারীর স্বামী দুই সন্তানসহ তাকে ফেলে আরও একটি বিয়ে করে অন্যত্র চলে যায়।

এরপর সন্তানদের নিয়ে তিনি বিটু আহম্মেদের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। কিছুদিন ধরে বাড়ির মালিক বিটু আহম্মেদ তাকে কুপ্রস্তাব দিয়ে উত্ত্যক্ত করতে থাকে।

গতকাল বৃহস্পতিবার ফজরের নামাজের পর বিটু ওই নারীকে দরজা খুলতে বলে। দরজা খোলামাত্র বিটু চাপাতি দিয়ে ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করে। বিষয়টি জানাজানি করলে সন্তানসহ তাকে হত্যা করবে বলে হুমকিও দেয়। পরে তিনি কৌশলে পালিয়ে থানায় এসে বিটুর বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা করেন।

বিটু আহম্মেদ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ভাড়াটিয়া ওই নারী আমাকে জড়িয়ে মিথ্যা অভিযোগ করছেন। এ ঘটনার সঙ্গে তিনি জড়িত নন বলে দাবি করেন।

অভয়নগর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মিলন কুমার মণ্ডল জানান, ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত বিটু আহম্মেদকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ওই নারীকে যশোর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য করুন