বারহাট্টা উপজেলার আসমা ইউনিয়নের আসমা থেকে মনাশ সড়কে কাউনাই নদীর ওপর সেতু নির্মাণের দাবি দীর্ঘদিনের। কিন্তু আজও নির্মাণ হয়নি সেতু। জনপ্রতিনিধিরা বারবার আশ্বাস দিলেও পাকা সেতু নির্মাণ হচ্ছে না। ঝুঁকি নিয়ে এলাকার হাজার হাজার মানুষকে নড়বড়ে বাঁশের সাঁকোর ওপর দিয়ে পারাপার হতে হয়। ক্ষুব্ধ এলাকাবাসীর প্রশ্ন- কবে হবে পাকা সেতু নির্মাণ?

বারহাট্টার আসমা ইউনিয়নের মনাশ বাজার থেকে একটি পাকা সড়ক উপজেলার গোড়ল এলাকা হয়ে কলমাকান্দার দশধার ও আমবাড়ী সড়কে মিশেছে। ওই পথ দিয়ে উপজেলার উজানগাঁও, দেওপুর, গাবারকান্দা, ধোবাহালা, হরিয়াতলা, বাউসী, হাজিগঞ্জ, শেখেরপাড়া, ছয়গাঁও, আসমাসহ কমপক্ষে ২৫টি গ্রামের হাজার হাজার মানুষ চলাচল করে। আসমা বাজার থেকে মনাশ বাজার সড়কের গোড়ল গ্রামে কাউনাই নদীর ওপর সেতু নির্মাণ হয়নি। ওই এলাকার মানুষের চলাচলের একমাত্র ভরসা কাউনাই নদীর ওপর জরাজীর্ণ বাঁশের সাঁকো। এলাকাবাসী চলাচলের জন্য স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করেন। ওই সাঁকোর দুই পাশে রয়েছে স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসাসহ ১০-১২টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। শিক্ষক, শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসীকে প্রতিদিন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হয় ওই সেতুর ওপর দিয়ে। সেতুর ওপর থেকে পড়ে অনেকে আহতও হয়েছেন। জরুরি ও প্রসূতি রোগীদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, জেলা সদরসহ বিভিন্ন হাসপাতালে নিতে গিয়ে দুর্ভোগের শিকার হতে হয় এলাকার মানুষকে। এলাকার উৎপাদিত ফসল বাজারে বিক্রিতে অনেক অসুবিধার মধ্যে পড়তে হয় মানুষকে। এ নিয়ে এলাকাবাসী মানববন্ধন, স্মারকলিপি প্রদান করে সরকারের কাছে দাবিও জানিয়েছে। কিন্তু কোনো কাজ হয়নি। সংশ্নিষ্ট বিভাগ কাউনাই নদীর ওপর পাকা সেতু নির্মাণে কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করছে না।

বারহাট্টার কাউনাই নদীর তীরবর্তী মনাশ ও গোড়ল গ্রাম ঘুরে দেখা গেছে, নড়বড়ে বাঁশের সাঁকোর ওপর দিয়ে মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নদী পারাপার হচ্ছে। সাঁকোর কয়েক জায়গায় খুঁটি সরে গেছে এবং খুবই ঝুঁকিপূর্ণ রয়েছে।

গোড়ল গ্রামের বৃদ্ধ আবদুল হাকিম খান বলেন, 'ভোটের সময় এলেই নেতারা আমাদের কাছে আসেন, প্রতিশ্রুতি দেন নদীর ওপর পাকা সেতু নির্মাণ করার। ভোট শেষ এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর আর কেউ আমাদের খবরও লয় না। মরার আগে পাকা সেতু দেখে যেতে পারব কিনা আমার মনে সন্দেহ হয়।' কাউনাই নদীর তীরবর্তী গোড়ল গ্রামের বাসিন্দা স্কুলশিক্ষক নূরে আলম খান বলেন, 'পাকা সেতু নির্মাণের জন্য আমরা এলাকাবাসী বারবার দাবি করে আসছি। এ আসনের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা নির্বাচনের আগে ভোটের সময় আমাদের প্রতিশ্রুতি দেন নির্বাচিত হলে সবার আগে সেতুটি পাকা করার ব্যবস্থা করা হবে। কিন্তু কেউ তাদের কথা রাখেননি। নির্বাচনের পর কেউ আর এলাকাবাসীর খোঁজখবর নেন না।

বারহাট্টা উপজেলা প্রকৌশলী মো. রবিউল ইসলাম জানান, কাউনাই নদীর ওপর পাকা সেতু নির্মাণের প্রকল্প প্রস্তাবনা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বরাবরে পাঠানো হয়েছে। প্রকল্প অনুমোদন পাওয়া গেলেই কাজ করা হবে।

বিষয় : কাউনাই নদী

মন্তব্য করুন