মায়ের নিখোঁজ সংবাদ শুনে বাইসাইকেলে ২৩০ কিলোমিটার পাড়ি দিয়েছেন এক যুবক। লকডাউনের কারণে যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকায় গত শনিবার রাতে ঢাকার কর্মস্থল থেকে বাইসাইকেল চালিয়ে রওনা হন তিনি। ২৩০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে নিজ বাড়ি মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে পৌঁছান সোহেল আহমেদ নামের ওই যুবক। বিরামহীনভাবে প্রায় ১৪ ঘণ্টা সাইকেল চালানোর পর উপজেলার লঙ্গুরপাড় গ্রামের বাড়িতে গত রোববার পৌঁছান সোহেল।

উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নের লঙ্গুরপাড় গ্রামের মানিক মিয়ার স্ত্রী হাজেরা বিবি (৪৮) গত বুধবার রাতে একই গ্রামে অবস্থিত আসিদ আলীর বাড়িতে রাতের খাবার খান। এরপর তিনি প্রতিবেশী রকিব মিয়ার বাড়িতে রাতযাপন করেন। বৃহস্পতিবার ভোরে ঘুম থেকে উঠে রকিব মিয়ার স্ত্রীকে চা বানানোর কথা বলে ঘর থেকে বেরিয়ে যান। রকিব মিয়ার স্ত্রী চা তৈরি করলেও হাজেরা বিবি আর আসেননি।

হাজেরা বিবির ভাই আওয়ামী লীগ নেতা আসিদ আলী বলেন, খবর পেয়ে বোনের বাড়িতে গিয়ে দেখেন দরজা তালাবদ্ধ। পরে সম্ভাব্য সব আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতে খোঁজ নিয়েও কোনো সন্ধান না পেয়ে গত শুক্রবার বিকেলে কমলগঞ্জ থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন তিনি। শনিবার তিনি ঘটনাটি ফোনে ঢাকায় অবস্থান করা তার ভাগ্নে সোহেল আহমেদকে জানান। সোহেল মায়ের নিখোঁজ হওয়ার খবর শুনে বাইসাইকেল চালিয়ে ঢাকা থেকে রওনা দিয়ে ১৪ ঘণ্টা পর কমলগঞ্জের লঙ্গুরপাড়ের গ্রামের বাড়িতে আসেন। সোহেল বাড়ি পৌঁছেই লোকজন নিয়ে রোববার সারাদিন বাড়ির আশপাশের প্রায় ৫ কিলোমিটার এলাকার ঝোপঝাড়, খাল, ডোবা, পুকুরসহ সব আত্মীয়-স্বজনের বাড়ি খোঁজ করেও মা হাজেরা বিবির কোনো সন্ধান পাননি।

কমলগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সোহেল রানা জানান, নিখোঁজ গৃহবধূকে খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য করুন