কলমাকান্দা উপজেলার কলেজ রোড থেকে মাহাবুব আলম বাবুকে অপহরণের ১১ দিন পর গত শুক্রবার ভোরে সীমান্তবর্তী কাটালবাড়ি এলাকা থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। তাকে আদালতের মাধ্যমে পুলিশ পরিবারের কাছে বুঝিয়ে দিয়েছে।

কলমাকান্দার রংছাতী ইউনিয়নের কৃষ্ণপুর গ্রামের মো. আবু আসাদ স্ত্রী-সন্তান নিয়ে কলমাকান্দা সদরে কলেজ রোডে থাকতেন। তার ছেলে মাহাবুব আলম বাবুকে ১৩ সেপ্টেম্বর পূর্বপরিচিত মোশারফ হোসেন, মোস্তফা, সোহেল মিয়া, শান ওরফে কিবরিয়া, আল আমিনসহ অজ্ঞাতপরিচয় আরও চার-পাঁচজন বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যায়। ওইদিন মাহাবুব আলম আর বাসায় ফিরেনি। পরদিন তার স্ত্রী সুরমা আক্তার স্বামীর মোবাইল ফোনে কল করে বন্ধ পান। পরে সুরমা আক্তারের কাছে মোবাইলে ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়। চাহিদামতো টাকা না দিলে মাহাবুব আলমকে ভারত থেকে অন্যত্র পাচার করে দেওয়া হবে বলে হুমকি দেওয়া হয়। মোশারফ হোসেনের মোবাইল ফোনে মাহাবুবকে ছেড়ে দেওয়ার কথা বললে অগ্রিম টাকা দেওয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করা হয়। টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে মাহাবুবকে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়। এ ঘটনায় মাহাবুব আলমের মা রহিমা খাতুন বাদী হয়ে ১৭ সেপ্টেম্বর মোশারফ হোসেন, মোস্তফা, সোহেল মিয়া, শান ওরফে কিবরিয়ার নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতপরিচয় আরও চার-পাঁচজনের বিরুদ্ধে কলমাকান্দা থানায় মানব পাচার আইনে মামলা করেন। নেত্রকোনা ডিবি পুলিশ গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় অপহরণের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে জেলা শহর থেকে আল আমিনকে গ্রেপ্তার করে।

মন্তব্য করুন