নারায়ণগঞ্জের অন্যতম সন্ত্রাসী, জোড়া খুনসহ একাধিক মামলার আসামি বিএনপি নেতা হাসান আহমেদকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শনিবার সকালে শহরের বাবুরাইলের নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে সদর মডেল থানা পুলিশ। পরে তাকে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। তার বিরুদ্ধে ২৮ মার্চ হেফাজতে ইসলামের ডাকা হরতালে উস্কানি দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। ওই ঘটনায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় দায়েরকৃত একটি মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন জানিয়ে বিকেলে তাকে আদালতে পাঠানো হয়। নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আহাম্মেদ হুমায়ূন কবীরের আদালতে শুনানি শেষে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তার দু'দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

গ্রেপ্তার হাসান নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র-১ আফরোজা হাসান বিভার স্বামী।

হাসানের বিরুদ্ধে জোড়া খুনসহ একাধিক মামলা রয়েছে। মণ্ডলপাড়া, নিতাইগঞ্জ, বাবুরাইল এলাকায় বিভিন্ন পরিবহন, অবৈধ অটোস্ট্যান্ডে চাঁদাবাজি, মাদক বিক্রেতাদের শেল্টার দেওয়াসহ নানা অভিযোগ রয়েছে হাসানের বিরুদ্ধে। নগরের বাবুরাইল, পাইকপাড়া, কাশীপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় হাসানের তৈরি কিশোর গ্যাংয়ের একাধিক গ্রুপ সক্রিয় রয়েছে।

২০১৭ সালের ১২ অক্টোবর রাতে মাদক ব্যবসা ও আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধে কাশীপুরের হোসাইনি নগর এলাকায় একটি রিকশার গ্যারেজে হাসানের সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা কুপিয়ে তুহিন হাওলাদার মিল্টন ও পারভেজ আহমেদ নামের দু'জনকে হত্যা করে। হাসান ও তার বাহিনীর ভয়ে নিহতদের পরিবার থেকে মামলা না করায় ঘটনার দু'দিন পর ওই বছরের ১৪ অক্টোবর ফতুল্লা মডেল থানার এসআই মাজহারুল ইসলাম বাদী হয়ে ওই ঘটনায় মামলা করেন। মামলায় বিএনপি ক্যাডার হাসান ও তার ভাই এম এ মজিদকে প্রধান আসামি করা হয়।

মন্তব্য করুন