শ্রীপুরে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে দু'পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় ১৭ জনকে আসামি করে দুটি মামলা হয়েছে। এর মধ্যে পুলিশ বাদী হয়ে ছয়জনকে আসামি করে অস্ত্র আইনে একটি মামলা করে। আর ২০ লাখ টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগে ১১ জনকে আসামি করে অন্য মামলাটি করেন ওয়ালেক্স টাইলস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শামসুর রহমান খান।

শনিবার মামলা দুটি দায়ের করা হয়। দুটি মামলারই প্রধান আসামি একিন আলী ও তার স্ত্রী রোকেয়াকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, শ্রীপুর উপজেলার গাজীপুর উত্তরপাড়া গ্রামে একটি শিল্পকারখানা গড়ে তোলার জন্য ঢাকার বিজয় সরণির বাসিন্দা শামসুর রহমান খান প্রায় এক দশক আগে কিছু জমি ক্রয় করেন। ওই এলাকার মোহর আলী নামের এক প্রবীণের কাছ থেকেও কিছু জমি কেনেন তিনি। অল্প কিছুদিন আগে তিনি প্রয়াত হন। শুক্রবার বিকেলে পতিত পড়ে থাকা ওই জমিতে স্থাপনা নির্মাণ করতে যান প্রস্তাবিত ওয়ালেক্স টাইলস লিমিটেডের লোকজন। এ সময় স্থাপনা নির্মাণের স্থানে নিজের কিছু জমি আছে দাবি করে ঘটনাস্থলে যান একিন আলী ও তার পরিবারের সদস্যরা। পরে উভয়পক্ষ বাগ্‌বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়লে একপর্যায়ে তা সংঘর্ষে রূপ নেয়। এতে দু'পক্ষের অন্তত ১৫ জন আহত হন।

শামসুর রহমান খান অভিযোগ করেন, একিন আলী ও তার লোকজন আমার লোকজনের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েন এবং নির্মাণাধীন ঘরে ভাঙচুর চালান। এতে ওই জমির তত্ত্বাবধায়ক ইসমাইল হোসেনসহ সাতজন আহত হন। তার দাবি, ওই জমিতে কোনো স্থাপনা তৈরি করতে হলে একিন আলীকে ২০ লাখ টাকা চাঁদা দিতে হবে। চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে তারা এ হামলা করেন।

এ সময় খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে একিন আলী ও তার লোকজন পুলিশের ওপর হামলা করে। এতে সোহেল রানা নামের এক কনস্টেবল আহত হন। এ ঘটনায় শ্রীপুরের চকপাড়া পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই মোহাম্মদ আবু জাফর মোল্লাহ বাদী হয়ে একিন আলীকে প্রধান আসামি করে ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। একই দিন ওয়ালেক্স টাইলস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শামসুর রহমান খান ১১ জনকে আসামি করে আরও একটি মামলা করেন।

ঘটনার পর গ্রেপ্তার একিন আলী ও তার স্ত্রী পুলিশ হেফাজতে চিকিৎসাধীন। অন্যরা পলাতক। একিন আলীর সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হয়নি। তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক তার এক স্বজন জানান, পৈতৃক সূত্রে ওখানে কিছু জমির মালিক একিন আলী। জমি বুঝিয়ে দিয়ে স্থাপনা নির্মাণের কথা বলার পর দু'পক্ষের মধ্যে সংর্ঘষ হয়। জমি নিয়ে বিরোধের কারণেই এ ঘটনা ঘটেছে। চাঁদা দাবির অভিযোগটি সঠিক নয়।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খোন্দকার ইমাম হোসেন বলেন, এ ঘটনায় শনিবার দুটি মামলা হয়েছে।

মন্তব্য করুন