ডিসির জাল স্বাক্ষরে ৪শ' অস্ত্রের লাইসেন্স

শামসুল রিমান্ডে, জড়িত কারা খতিয়ে দেখছে দুদক

প্রকাশ: ০৯ জুলাই ২০১৭

রংপুর অফিস

রংপুরের জেলা প্রশাসকের (ডিসি) স্বাক্ষর জাল করে ৪০০ অস্ত্রের লাইসেন্স বিক্রি করে কোটিপতি বনে যাওয়া শামসুল ইসলামকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নিয়েছে দুদক। এ ঘটনায় করা মামলায় শুক্রবার সন্ধ্যায় রংপুরের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আরিফুল ইসলামের আদালতে শামসুলের সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করা হয়। আদালত শুনানি শেষে পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ডের প্রথম দিনেই জিজ্ঞাসাবাদে সে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে বলে জানিয়েছেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) রংপুরের সহকারী পরিচালক আতিকুর রহমান। তিনি জানান, শামসুলের দেওয়া তথ্য যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। এ ঘটনায় কারা জড়িত, সরকারি কোনো লোকজন জড়িত কি-না, তাও
খতিয়ে দেখছে দুদক।
রংপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের জিএম শাখার অফিস সহকারী হিসেবে কর্মরত ছিল শামসুল ইসলাম। ডিসির স্বাক্ষর জাল করে চার শতাধিক আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স পাইয়ে দিয়ে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে গত ১৮ মে তার বিরুদ্ধে রংপুর কোতোয়ালি থানায় মামলা হয়। জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের প্রশাসনিক কর্মকর্তা অমূল্য চন্দ্র রায় বাদী হয়ে মামলাটি করেন। গত বুধবার রাতে ঢাকার নিউমার্কেট এলাকা থেকে শামসুলকে গ্রেফতার করে র‌্যাব।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আতিকুর রহমান বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে শামসুল বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে। তদন্তের স্বার্থে তা প্রকাশ করা সম্ভব হচ্ছে না। তিনি বলেন, আমরা প্রথমে তদন্ত করে দেখছি শামসুল আসলে কতগুলো অস্ত্রের জাল লাইসেন্স পাইয়ে দিয়েছিল। এর পরে আমরা গুরুত্ব দিচ্ছি সরকারের কোনো লোক এতে জড়িত কি-না। ঘটনার সঙ্গে আর কারা জড়িত, কীভাবে লাইসেন্স দেওয়া হয়েছে, সার্বিক বিষয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।
রংপুরের জেলা প্রশাসক কার্যালয়, দুদক ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, ১৯৮৭ থেকে ২০০৯ সালের মধ্যে শামসুল ইসলাম জেলা প্রশাসকের স্বাক্ষর জাল করে ভুয়া কাগজপত্র তৈরির মাধ্যমে প্রায় ৪০০ অত্যাধুনিক অস্ত্রের লাইসেন্স বিক্রি করেছে। একেকটি লাইন্সেস বাবদ সে নিয়েছে ৫ থেকে ১০ লাখ টাকা।
গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নগরীর স্টেশন এলাকায় রংপুর র‌্যাব-১৩ কার্যালয়ে আয়োজিত প্রেস ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, গোপন সংবাদে বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকার নিউমার্কেট এলাকা থেকে শামসুলকে গ্রেফতার করা হয়।