শীর্ষ নেতাদের বৈঠক

খুলনা ও গাজীপুর সিটিতে জোটগত প্রার্থী দেবে ২০ দল

প্রকাশ: ০৭ এপ্রিল ২০১৮      

সমকাল প্রতিবেদক

গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জোটগত প্রার্থী দেওয়ার বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে ২০ দলীয় জোট। বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয় গুলশানে গতকাল শুক্রবার জোটের এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বৈঠকে সিটি নির্বাচনকালীন প্রচার কার্যক্রম জোটের পক্ষ থেকে সমন্বিতভাবে পরিচালনার সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়। এ ছাড়া গাজীপুর সিটি করপোরেশনে জোটের শরিক জামায়াতের প্রার্থী অধ্যক্ষ মো. সানাউল্লাহর বিষয়ে জোটের পক্ষ থেকে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। তাদের এই অনুরোধের বিষয়ে জামায়াত কেন্দ্রীয়ভাবে সিদ্ধান্ত নেবে বলে বৈঠকে উপস্থিত দলের নেতা আবদুল হালিম জানান।

তিনি বলেন, জোটের ঐক্য ধরে রাখতে জামায়াত যে কোনো ছাড় দিতে প্রস্তুত। এর পরও নিজেদের সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য কেন্দ্রীয়ভাবে বৈঠক করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি আশ্বস্ত করেন।

একাদশ জাতীয় নির্বাচনে আসন বণ্টনের বিষয়ে প্রশ্ন উত্থাপন করা হলে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সমমর্যাদার ভিত্তিতে জোটের শরিকদের মূল্যায়ন করা হবে। তবে জোটনেত্রী খালেদা জিয়া কারাগারে থাকায় তাকে বাদ দিয়ে নির্বাচনের কোনো পরিকল্পনা নেই তাদের। আগে নেত্রীর মুক্তি, এরপর নির্বাচনের প্রসঙ্গ।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও জোটের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে এ বৈঠকে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ছাড়াও স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় উপস্থিত ছিলেন। ২০ দলের মধ্যে জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদের সদস্য আবদুল হালিম, জাতীয় পার্টির মোস্তফা জামাল হায়দার, বিজেপির চেয়ারম্যান আন্দালিব রহমান পার্থ, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, খেলাফত মজলিসের মাওলানা ইসহাক, এলডিপির মহাসচিব রেদোয়ান আহমেদ, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব শাহদাত হোসেন সেলিম, জাগপা সভাপতি অধ্যাপিকা রেহানা প্রধান, এনপিপির ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, ন্যাপের মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

দুই সিটিতে বিএনপির ১০ প্রার্থী : গাজীপুর

ও খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে বিএনপির ১০ প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। গতকাল দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের দপ্তর শাখায় তারা এ মনোনয়নপত্র জমা দেন। এর আগে গত বৃহস্পতিবার তারা কার্যালয় থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছিলেন। আগামীকাল রোববার দলের জ্যেষ্ঠ নেতাদের নিয়ে গঠিত মনোনয়ন বোর্ড নেতাদের সাক্ষাৎ গ্রহণ শেষে চূড়ান্ত প্রার্থী ঘোষণা করবে।

গাজীপুর সিটি নির্বাচনে প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন বর্তমান মেয়র ও দলের ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল মান্নান, জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য হাসানউদ্দিন সরকার, শ্রমিক দলের কার্যকরী সভাপতি সালাউদ্দিন সরকার, জেলা বিএনপি নেতা আবদুস সালাম, মেয়র আবদুল মান্নানের ছেলে এম মনজুরুল করীম রনি, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি শরাফত হোসেন এবং জেলা বিএনপির সাহিত্য ও প্রকাশনাবিষয়ক সম্পাদক শওকত হোসেন সরকার।

খুলনায় তিনজন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। তারা হলেন- বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম মঞ্জু, বর্তমান মেয়র খুলনা মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি ও জেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট শফিকুল আলম মনা।

সর্বশেষ ২০১৩ সালের ৬ জুলাই গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির অধ্যাপক আবদুল মান্নান এবং ওই বছরের ১৫ জুন খুলনা সিটি করেপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মনিরুজ্জামান মনি বিজয়ী হয়েছিলেন।