সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে অভিযান

প্রকাশ: ২৪ জুন ২০১৪      

টেকলাইন ডেস্ক

হুমকির মুখে রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা। চারদিকে যুদ্ধ আতঙ্কে ভারি পরিবেশ। সন্ত্রাসবাদ নির্মূলে চালাতে হবে উৎখাত অভিযান। যেসব গেমার অ্যাকশন ধাঁচের ফাস্ট পারসন শুটিং গেম খেলতে পছন্দ করেন, তাদের জন্য আদর্শ গেম 'ওলফেনস্টেইন' সিরিজ। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরবর্তী সময়ে সন্ত্রাসবাদের উত্থানের ঘটনা নিয়ে নির্মিত হওয়ায় ২০০৯ সালে গেমটির প্রথম সিক্যুয়াল দারুণ জনপ্রিয় হয়। এরই ধারাবাহিকতায় চলতি বছরের মে মাসে 'ওলফেনস্টেইন' সিরিজে যুক্ত হয়েছে পরবর্তী সংস্করণ 'ওলফেনস্টেইন : দ্য নিউ অর্ডার'। বেথেসডা সফটওর্কসের ব্যানারে এবং গেম নির্মাতা প্রতিষ্ঠান মেশিন গেমসের তত্ত্বাবধানে নির্মিত গেমটি হয়েছে গেমটি। এটি এক্সবক্স ওয়ান, প্লে-স্টেশন ৪ এবং মাইক্রোসফট উইন্ডোজচালিত পিসিসহ প্রায় সব ধরনের গেমিং কনসোলেই সমানতালে উপভোগ্য হবে।
কাহিনী :সিক্যুয়ালধর্মী গেমটির কাহিনী আগের সংস্করণ অর্থাৎ 'ওলফেনস্টেইন'-এর তিন বছর পর থেকে শুরু করা হয়েছে। সাল ১৯৪৬। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের রেশ এখনও কাটেনি। তাই সমগ্র ইউরোপে চলছে বিভিন্ন শক্তিধর দেশের তর্জন-গর্জন। এমন সময় ইউরোপের বিভিন্ন দেশের মধ্যে যুদ্ধ লাগিয়ে অস্ত্র ব্যবসায় লাভবান হওয়ার ফায়দা নিতে চায় সন্ত্রাসী সংগঠন 'নাৎসি ফোর্সেস'। তারা নির্মাণ করবে অস্ত্রসহ ধ্বংসাত্মক রোবট। যাদের দ্বারা যুদ্ধ পরিচালনা করে ইউরোপ ধ্বংসের পরিকল্পনা করে নাজি ফোর্সেস। এ জন্য গোপনে মূল শহর থেকে দূরে ডেথসেড নামের ধ্বংসাত্মক রোবট নির্মাণ করতে থাকে তারা। কয়েক বছরের মধ্যেই অস্ত্রে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়ে ইউরোপে নিজেদের আধিপত্য বিস্তারে অভিযানে নামে নাৎসি সেনারা। এ সময় ইউরোপের বিভিন্ন দেশের মধ্যে শান্তি এবং সমঝোতার লক্ষ্যে কাজ করছিল নিরাপত্তা বাহিনী 'অ্যালিয়েস'। খবর পেয়ে সন্ত্রাসী সংগঠনটিকে উৎখাতে বিশেষ অভিযানের ঘোষণা করেন অ্যালিয়েস বাহিনীর প্রধান জেনারেল উইলহেল্ম স্ট্রেস। ফার্সদ্ব পারসন শুটিং ধাঁচের গেমটিতে গেমারকে খেলতে হবে ক্যাপ্টেন বিজে. ব্লাস্কোউইজকে [গেমের প্রধান চরিত্র] নিয়ে। এ সময় অ্যালিয়েস বাহিনীর গঠিত স্পেশাল কিলিং টিমের প্রধান সেনা হিসেবে গেমরাকে লড়তে সন্ত্রাসী রোবটের বিরুদ্ধে। অভিযান চলাকালে ইউরোপের বিভিন্ন দুর্গম স্থানে আত্মগোপন করে থাকতে হবে গেমারকে। গেমটিতে টিকে থাকতে প্রতিটি লেভেলেই গেমারকে হেলথ প্যাক সংগ্রহ করতে হবে, যা গেমারের ক্ষমতা বৃদ্ধি করবে। অভিযানের মাধ্যমে শত্রু রোবট ধ্বংস করতে গেমারকে ব্যবহার করতে হবে আধুনিক আগ্নেয়াস্ত্র। গেমটি খেলার সময় গেমারকে সহযোগিতা করতে থাকছে ত্রিমাত্রিক ম্যাপ। গেমটির গ্রাফিক্স এবং শব্দ-কৌশল গেমারকে পরিপূর্ণ ত্রিমাত্রিক জগতের অনুভূতি দিতে সক্ষম হবে।
প্রয়োজনীয় সিস্টেম : গেমটি উপভোগে প্রয়োজন হবে ইন্টেল কোর টু ডুয়ো ই৮২০০ সিরিজের ২.৬৬ গিগাহার্জ বা এএমডি ফেনম ২ এক্স২ ৫৪৫ প্রসেসর, ৪ গিগাবাইট র‌্যাম, এনভিডিয়া জি-ফোর্স জিটিএস ২৫০ অথবা র‌্যাডন এইচডি ৬৬৭০ সিরিজের ১ গিগাবাইট গ্রাফিক্স কার্ড, ডাইরেক্ট এক্স-১১ এবং কমপক্ষে ৫০ গিগাবাইট হার্ডডিস্ক স্পেস।