ফিক্সিংয়ে জড়িত ঘানা!

প্রকাশ: ২৪ জুন ২০১৪      

স্পোর্টস ডেস্ক

ব্রিটিশ মিডিয়ার ছদ্মবেশী তদন্তে ভয়ঙ্কর এক খবর বেরিয়ে এসেছে। ব্রিটিশ দৈনিক 'ডেইলি টেলিগ্রাফ' এবং টিভি চ্যানেল 'চ্যানেল ফোর' এর ছদ্মবেশী সাংবাদিকদের সঙ্গে নাকি ম্যাচ ফিক্সিং করতে সম্মত হয়েছিলেন ঘানা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (জিএফএ) প্রেসিডেন্ট। বোমা ফাটানো ওই সংবাদের পর ঘানা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন এক বিবৃতি দিয়ে অভিযোগকারী ওই দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে পুলিশি তদন্তের ঘোষণা দিয়েছে। জিএফএ বিবৃতিতে আরও বলেছে, 'যদি এ অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়, তাহলে অভিযুক্তদের কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে।' জিএফএ প্রেসিডেন্ট অবশ্য এ খবরকে ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছেন। ব্রাজিল বিশ্বকাপ জার্মানির বিপক্ষে ২-২ গোলে ঘানার রোমাঞ্চকর ড্রর পরদিনই এমন দুঃসংবাদটি এলো।
দুটি ব্রিটিশ মিডিয়া দাবি করেছে, প্রায় ছয় মাসের তদন্তে তারা এ তথ্য বের করে এনেছেন। তাদের দাবি, ঘানাসহ আফ্রিকার বিভিন্ন দেশের ফুটবল সংস্থা অপরাধীদের সঙ্গে যোগসাজশে অর্থের বিনিময়ে ম্যাচ ফিক্সিং করে থাকে। টেলিগ্রাফ দাবি করে, ফিফার একজন সাবেক তদন্ত কর্মকর্তা নাকি স্পন্সর কোম্পানির কর্তাব্যক্তি সেজে এক লাখ ৭০ হাজার ডলারের বিনিময়ে ঘানা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্টকে ম্যাচ ফিক্সিংয়ে রাজি করিয়েছিলেন।
তবে জিএফএ বিবৃতিতে জানিয়েছে, 'দুটি ইংলিশ মিডিয়া হাউসের প্রতিনিধি ক্রিস্টোফার অ্যান্টন ফোরসথে এবং ওবেড এনকেতাহ ফিক্সিংয়ের ওপর একটি ডকুমেন্টারি তৈরিতে আমাদের কাছে সহায়তা চেয়েছিল। এর পরই বিষয়টি সামনে এসেছে।' বিবৃতিতে তারা বিষয়টি পরিষ্কারও করেছে, 'মিডিয়া থেকে জানতে চাওয়ায় তাদের সম্প্রচার চুক্তির একটি খসড়া পাঠানো হয়, যেখানে একটি ধারা ছিল যে, 'ব্ল্যাক স্টার'দের প্রীতি ম্যাচগুলোতে সম্প্রচার স্বত্ব পাওয়া কোম্পানির ইচ্ছামতো রেফারি নিয়োগ দিতে হবে। চুক্তি করার সময় নাকি ঘানা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের কর্মকর্তাদের ঘুষ দেওয়ার বিষয়টিও তারা ভিডিও করে রেখেছেন বলে দাবি করছে ওই দুই ব্রিটিশ মিডিয়া হাউস। তবে আমরা সবাইকে জানাতে চাই যে, আমরা এখনও কোনো চুক্তি স্বাক্ষর করিনি। লিগ্যাল কমিটির অনুমোদনের অপেক্ষায় আছি আমরা। এরই মধ্যে দু'জন ভদ্রলোক আমাদের বিরুদ্ধে এমন একটি দুর্নীতির অভিযাগ আনলেন।' জিএফএ বিবৃতিটি বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফা এবং কনফেডারেশন অব আফ্রিকান ফুটবল বরাবর পাঠিয়েছে। এর আগে ঘানা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্টও এক বিবৃতিতে এ অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছেন। তিনি বলেছেন, অর্ধ সত্য, অর্ধ মিথ্যা মিলিয়ে একটি অভিযোগ দাঁড় করানো হয়েছে। এ ছাড়া তারা কোনো ম্যাচ ফিক্সিংয়ে সম্মত হননি বলেও জোরের সঙ্গে দাবি করেছেন।