ম্যাচ হাইলাইটস

প্রকাশ: ২৪ জুন ২০১৪

পর্তুগাল-যুক্তরাষ্ট্র

৫ মিনিট : গোল; বিপদমুক্ত করতে গিয়ে উল্টো দলকে বিপদে ঠেলে দেন যুক্তরাষ্ট্রের ডিফেন্ডার জিওফ ক্যামেরন। ডি-বক্সে তার কাছ থেকে বল পেয়ে যান ন্যানি। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডেরে ফরোয়ার্ডের জোরালো শট ফেরানোর কোনো সুযোগই ছিল না টিম হাওয়ার্ডের।
৩৬ মিনিট : সেভ; ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর জোরালো শট ফিরিয়ে দেন যুক্তরাষ্ট্রের গোলরক্ষক
৪৫ মিনিট : সেভ; ন্যানির দ্রুতগতির শট কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করেন হাওয়ার্ড।
৫৫ মিনিট : মিস; খোলা জালে শট নিয়েছিলেন মাইকেল ব্র্যাডলে। কিন্তু অবিশ্বাস্যভাবে লাইন থেকে বল ফিরিয়ে দেন রিকার্ডো কস্তা।
৬২ মিনিট : মিস; ডি-বক্সে বল পেয়েও তা বাইরে দিয়ে মারেন পর্তুগালের ভরসা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো।
৬৪ মিনিট : গোল; ডি-বক্সের ঠিক বাইরে থেকে জোন্সের বাঁকানো শট পর্তুগালের জাল খুঁজে পায়। ম্যাচে সমতা ফেরায় যুক্তরাষ্ট্র।
৮১ মিনিট : গোল; জুসির শট থেকে নিচু হয়ে বুক দিয়ে বল জালে জড়িয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে ২-১ গোলে এগিয়ে নেন ডেম্পসি।
৯০+৫ মিনিট : গোল; ইনজুরি সময়ের পঞ্চম মিনিটের খেলা চলছিল। ত্রিশ সেকেন্ডেরও কম সময় বাকি। ডান দিক থেকে রোনালদোর নিখুঁত ক্রসে ভারেলার হেড চলে যায় যুক্তরাষ্ট্রের জালে। নাটকীয়ভাবে ম্যাচে সমতায় শেষ করে বিশ্বকাপে টিকে থাকে পর্তুগাল।