একজন নারীকে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত করতে মার্কিনিরা প্রস্তুত কিনা সে বিষয়ে নিশ্চিত নন হিলারি ক্লিনটন। যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাটিক দল থেকে মনোনয়ন পেতে লড়ছেন সাবেক এ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও ফার্স্ট লেডি। এই সময়ে ভোগ ম্যাগাজিনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ভোটারদের মনোভাব সম্পর্কে এমন সন্দেহ প্রকাশ করলেন হিলারি। তবে এ সংশয় সত্ত্বেও ডেমোক্র্যাট ডেলিগেটরা হিলারিকেই সমর্থন করছেন বেশি। এ পর্যন্ত হিলারিকে সমর্থন জানিয়েছেন ৮৭ জন ডেলিগেট। বিপরীতে তার প্রতিদ্বন্দ্বী বার্নি স্যান্ডার্সের পক্ষ নিয়েছেন মাত্র ১১ জন। খবর ওয়াশিংটন পোস্ট ও এনডিটিভির।
নির্বাচনী প্রচারের শুরু থেকেই হিলারি বলে আসছেন, তিনি দেশের প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট হয়ে ইতিহাস গড়তে চান। অথচ দলীয় প্রাথমিক বাছাইপর্ব চলাকালে ভোগ ম্যাগাজিনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এ বিষয়ে মার্কিন ভোটারদের মনোভাব নিয়ে সংশয় প্রকাশ করলেন তিনি। সাক্ষাৎকারে এক প্রশ্নের জবাবে হিলারি বলেন, 'আমি সত্যিই জানি না। আমি মনে করি পরিস্থিতি এখন অনেক উন্নতি হয়েছে। তারপরও গভীর উৎকণ্ঠা রয়ে গেছে যে, মানুষজন হয়তো এ বিষয়ে সচেতন নয় বা তারা এ বিষয়ে কিছু বলছে না।' তিনি বলেন, 'বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বিষয়টি খুব একটা প্রকাশ্য নয়। ভোটাররা সঠিক ব্যক্তিকেই ভোট দিতে আগ্রহী। আপনি হয়তো কিছুটা আভাসও পেয়ে থাকবেন যে, মার্কিনিরা দেশের শীর্ষ নির্বাহী পদে একজন নারীকে অধিষ্ঠিত দেখতে ততটা স্বস্তি বোধ করেন না।'
বেশি ডেলিগেট হিলারির পক্ষে : দলীয় ডেলিগেটের সমর্থন আদায়ে প্রতিদ্বন্দ্বী ভারমন্টের সিনেটর বার্নি স্যান্ডার্সের চেয়ে বিপুল ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছেন হিলারি ক্লিনটন। নিয়ম অনুযায়ী প্রাথমিক বাছাইপর্ব শেষে দলের জাতীয় সম্মেলনে ডেলিগেটরা কোনো একজন প্রার্থীকে চূড়ান্ত সমর্থন জানান। তিনিই দলীয় মনোনয়ন নিয়ে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন করেন। অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসের এক জরিপে বলা হয়, নিউ হ্যাম্পশায়ারে প্রাথমিক বাছাইয়ের পর থেকে হিলারি ৮৭ জন ডেলিগেটের সমর্থন পেয়েছেন। বিপরীতে স্যান্ডার্স পেয়েছেন মাত্র ১১ জনের সমর্থন। এ অবস্থায় মনোনয়ন পেতে হলে স্যান্ডার্সকে বাকি বাছাইগুলো বিপুল ব্যবধানেই জিততে হবে। কেননা দলটির নিয়ম অনুযায়ী পরাজিত প্রার্থীও তার প্রাপ্ত ভোটের সমানুপাতে ডেলিগেট পান। অর্থাৎ দু'জনের ভোটের ব্যবধান কম হলে হিলারির ডেলিগেট সংখ্যা বাড়তেই থাকবে।
জনমত জরিপে পিছিয়ে হিলারি : এই প্রথমবারের মতো জাতীয়ভিত্তিক জরিপে হিলারিকে পেছনে ফেললেন স্যান্ডার্স। জরিপ অনুযায়ী দলটির ভোটারদের ৪৭ শতাংশ স্যান্ডার্সকে এবং ৪৪ শতাংশ হিলারিকে সমর্থন করছেন। এক মাস আগেও ৪৯ শতাংশের সমর্থন নিয়ে এগিয়ে ছিলেন। রাজ্যভিত্তিক জরিপেও স্যান্ডার্সের চেয়ে পিছিয়ে রয়েছেন হিলারি।

মন্তব্য করুন