প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার প্রস্তুতি :পর্ব-১২৮

বাংলা

কাদের নিয়ে মুক্তিবাহিনী গঠিত হয়েছিল?

প্রকাশ: ০৯ জুলাই ২০১৪      

মো. সুজাউদ দৌলাপ্রভাষকরাজউক উত্তরা মডেল কলেজঢাকা

শিক্ষার্থী বন্ধুরা, প্রীতি ও শুভেচ্ছা নিও। আজকের পাঠশালায় তোমাদের জন্য থাকছে কিছু গুরুত্বপূর্ণ জ্ঞানমূলক প্রশ্ন ও উত্তরের ওপর আলোচনা। পাঠশালায় প্রকাশিত কপিগুলো সংগ্রহে রেখে নিয়মিত অনুশীলন করবে।

১. অল্প কথায় উত্তর দাও :
ক) মুজিবনগর সরকার কখন ও কোথায় গঠিত হয়েছিল? এ সরকারে কারা ছিলেন?
উত্তর : মুক্তিযুদ্ধের সময় গঠিত গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার বিভিন্ন নামে পরিচিত ছিল। তবে এটি মুজিবনগর সরকার নামে বেশি পরিচিত। এ সরকারের নেতৃত্বেই মুক্তিযুদ্ধ সংঘটিত এবং বাংলাদেশ শক্রমুক্ত হয়।
মুজিবনগর সরকার গঠন : ১৯৭১ সালের ১০ এপ্রিল গঠিত হয় প্রথম বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকার, যা মুজিবনগর সরকার নামে পরিচিত। ১৭ এপ্রিল মেহেরপুর জেলার বৈদ্যনাথতলা (বর্তমান উপজেলা মুজিবনগর) গ্রামের আমবাগানে এ সরকার শপথ গ্রহণ করে।
মুজিবনগর সরকারে যারা ছিলেন : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এ সরকারের রাষ্ট্রপতি নিযুক্ত হন। উপরাষ্ট্রপতি ছিলেন সৈয়দ নজরুল ইসলাম। বঙ্গবন্ধু তখন পশ্চিম পাকিস্তানের কারাগারে বন্দি থাকায় তিনি অস্থায়ী রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব পালন করেন। তাজউদ্দীন আহমদ ছিলেন প্রধানমন্ত্রী। এ ছাড়া অন্য তিনজন মন্ত্রী ছিলেন_ অর্থমন্ত্রী এম মনসুর আলী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচএম কামরুজ্জামান, পররাষ্ট্র ও আইনমন্ত্রী খন্দকার মোশতাক আহমদ। মুুক্তিযুদ্ধ পরিচালনা এবং দেশ-বিদেশে এই যুদ্ধের পক্ষে জনমত গড়ে তোলা ও সমর্থন আদায় করার ক্ষেত্রে মুজিবনগর সরকার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।
খ) আমাদের মুক্তিযুদ্ধে মুজিবনগর সরকারের গুরুত্ব বর্ণনা কর।
উত্তর : আমাদের মুক্তিযুদ্ধে মুজিবনগর সরকারের গুরুত্ব অপরিসীম। মুক্তিযুদ্ধের কিছুদিনের মধ্যেই ১৯৭১ সালের ১০ এপ্রিল গঠিত হয় মুজিবনগর সরকার। এই সরকার ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল শপথ গ্রহণ করে। মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনার জন্য মুুজিবনগর সরকারের উদ্যোগে ১৯৭১ সালের ১১ জুলাই মুক্তিবাহিনী গঠন করা হয়। কর্নেল মুহম্মদ আতাউল গণি ওসমানীকে মুক্তিবাহিনীর প্রধান সেনাপতি এবং গ্রুপ ক্যাপ্টেন একে খন্দকারকে মুক্তিবাহিনীর উপপ্রধান সেনাপতি নিযুক্ত করা হয়। লে. কর্নেল আবদুর রব সেনাবাহিনীর প্রধান নিযুক্ত হন। মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনার সুবিধার জন্য এ সময় বাংলাদেশকে ১১টি সেক্টরে ভাগ করা হয়। সেক্টরগুলোর অধীনে ছিল বেশ কয়েকটি সাব-সেক্টর। এ ছাড়া মুক্তিযুদ্ধের রণাঙ্গনকে ভাগ করা হয়েছিল তিনটি ব্রিগেড ফোর্সে। দেশ-বিদেশে এ যুদ্ধের পক্ষে জনমত গড়ে তোলা ও সমর্থন আদায় করার ক্ষেত্রে এই সরকার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এই সরকার গঠনের পর থেকে অগণিত মানুষ দেশকে মুক্ত করার জন্য সশস্ত্র সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়েন। যুদ্ধের সময় এ দেশের অগণিত সাধারণ মানুষ নিজেদের জীবন বিপন্ন করে মুক্তিবাহিনীর পক্ষে দাঁড়িয়েছিলেন। পাকিস্তানি বাহিনীর অত্যাচারের চিত্র বহির্বিশ্বের কাছে তুলে ধরে বিভিন্ন দেশের কাছে সাহায্যের আবেদন করা হয়। এই সরকার দেশ পরিচালনার সব দায়িত্ব গ্রহণ করে। এভাবে স্বাধীনতা লাভের ক্ষেত্রে মুজিবনগর সরকার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।
গ) কাদের নিয়ে মুক্তিবাহিনী গঠিত হয়েছিল?
উত্তর : সামরিক ও বেসামরিক জনগণের মিলিত অংশগ্রহণের মাধ্যমে মুক্তিবাহিনী গড়ে উঠেছিল। বাঙালি সামরিক অফিসার ও সৈন্যদের নিয়ে গঠিত ছিল মুক্তিবাহিনীর নিয়মিত বাহিনী। তাদের বলা হতো 'মুক্তিফৌজ'। আর বেসামরিক সর্বস্তরের মানুষ নিয়ে গড়ে উঠেছিল অনিয়মিত বাহিনী। এ ছাড়া দেশের অভ্যন্তরে আঞ্চলিক পর্যায়ে অন্য বেশকিছু ছোট বাহিনী গড়ে ওঠে। এর মধ্যে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর নেতৃত্বে 'কাদেরিয়া বাহিনী' এবং মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়ার নেতৃত্বে 'মায়া বাহিনী' উল্লেখযোগ্য।
ঘ) মুক্তিযুদ্ধে সাধারণ মানুষ কীভাবে অংশ নিয়েছিলেন?
উত্তর : ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধ আমাদের জাতীয় ইতিহাসে অত্যন্ত গৌরবময় ঘটনা। ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ শুরু হয় আমাদের মুক্তিযুদ্ধ।
মুক্তিযুদ্ধে সাধারণ মানুষ যেভাবে অংশ নিয়েছিলেন : মুক্তিযুদ্ধের সময় এ দেশের অগণিত সাধারণ মানুষ নিজেদের জীবন বিপন্ন করে মুক্তিবাহিনীর পাশে দাঁড়িয়েছিল। থাকা, খাওয়া, তথ্য ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় সাহায্য দিয়ে মুক্তিবাহিনীকে লড়াই চালিয়ে যেতে তারা উদ্বুদ্ধ করেছিলেন।
[ বাকি অংশ প্রকাশিত হবে আগামীকাল ]

পরবর্তী খবর পড়ুন : ইংরেজি

ডাকসু না হওয়ায় নেতৃত্বের বিকাশ ঘটছে না

ডাকসু না হওয়ায় নেতৃত্বের বিকাশ ঘটছে না

 ডাকসু ভিপি ১৯৬৩-৬৪ জ্ঞান-বিজ্ঞান, শিল্প-সাহিত্য, মুক্তবুদ্ধি চর্চা, রাজনৈতিক কর্মী ও নেতৃত্ব ...

সব আন্দোলন সংগ্রামের কেন্দ্র ছিল ডাকসু

সব আন্দোলন সংগ্রামের কেন্দ্র ছিল ডাকসু

ডাকসু ভিপি ১৯৭০-৭১ আজকের এই স্মৃতিচারণ আমার ব্যক্তিগত কৃতিত্ব জাহির করার ...

আগে নির্বাচনের পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে

আগে নির্বাচনের পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে

 ডাকসু ভিপি ১৯৭৯-৮০ বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের যে অবস্থা তাতে ডাকসু নির্বাচন ...

সব প্রতিষ্ঠানেই ছাত্র সংসদ নির্বাচন চাই

সব প্রতিষ্ঠানেই ছাত্র সংসদ নির্বাচন চাই

 ডাকসু ভিপি ১৯৮৯-৯০ ডাকসু শুধু নয়, দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয় এবং কলেজে ...

উদ্ধার হলো শাহনাজের বাইক, ধরা পড়ল চোর

উদ্ধার হলো শাহনাজের বাইক, ধরা পড়ল চোর

অ্যাপভিত্তিক রাইড শেয়ার ব্যবহারের মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ করা আলোচিত শাহনাজ ...

গণধর্ষণের ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলায় চরজব্বার থানার ওসিকে প্রত্যাহার

গণধর্ষণের ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলায় চরজব্বার থানার ওসিকে প্রত্যাহার

নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলায় গৃহবধূকে দলবেঁধে ধর্ষণের ঘটনায় দায়িত্ব পালনে অবহেলার ...

২৮ বছর পর 'দ্বিতীয় পার্লামেন্ট' স্বপ্ন ডানা মেলছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে

২৮ বছর পর 'দ্বিতীয় পার্লামেন্ট' স্বপ্ন ডানা মেলছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে

টানা ২৮ বছর পর দেশের 'দ্বিতীয় পার্লামেন্ট' হিসেবে খ্যাত 'ঢাকা ...

শাস্তির বদলে পদোন্নতি! লেক দূষণ রোধের ৫০ কোটি টাকা নয়ছয়

শাস্তির বদলে পদোন্নতি! লেক দূষণ রোধের ৫০ কোটি টাকা নয়ছয়

গুলশান-বারিধারা লেকের দূষণ রোধে ৫৪ কোটি টাকার প্রকল্প নিয়েছিল ঢাকা ...