প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার প্রস্তুতি :পর্ব-১৬৬

খরার কারণে কী কী সমস্যা হয়?

বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয়

প্রকাশ: ২৬ আগস্ট ২০১৪      

নাসিমা খাতুন জলিসহকারী শিক্ষকউদয়ন উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ঢাকা

শিক্ষার্থী বুন্ধরা, শুভেচ্ছা নিও। এখন তোমাদের জন্য বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয় বইয়ের ষষ্ঠ অধ্যায় জলবায়ু এবং দুর্যোগ থেকে গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন নিয়ে আলোচনা করা হচ্ছে। পরবর্তীতে আমরা অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন নিয়ে আলোচনা করব।
(গত আলোচনার পর থেকে)
অল্প কথায় উত্তর দাও।
ক) আবহাওয়া ও জলবায়ু কাকে বলে?
উত্তর : আবহাওয়া : কোন স্থানের স্বল্প সময়ের অর্থাৎ ১ থেকে ৭ দিনের বায়ু, তাপ, বৃষ্টিপাত প্রভৃতির গড় অবস্থাকে আবহাওয়া বলে।
জলবায়ু : কোন স্থানের দীর্ঘ সময়ের দৈনন্দিন আবহাওয়ার গড় অবস্থাকে জলবায়ু বলে। সাধারণত ৩০ বছরের বেশি সময়ের আবহাওয়ার গড়কেই জলবায়ু বলে।
খ) জলবায়ু পরিবর্তনে কী কী ক্ষতি হয়?
উত্তর : বিভিন্ন কারণে বিশ্বের জলবায়ু পরিবর্তিত হয়ে যাচ্ছে। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে প্রকৃতি ও পরিবেশ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এ পরিবর্তনের ফলে বাংলাদেশেও এর প্রভাব পড়েছে।
জলবায়ু পরিবর্তনে যেসব ক্ষতি হয় তা হলো :
ষগড় তাপমাত্রা বৃদ্ধি পাচ্ছে
ষঅতিবৃষ্টি বা অনাবৃষ্টি হচ্ছে
ষবঙ্গোপসাগরে বা উপকূলীয় অঞ্চলে
ষঘূর্ণিঝড়ের সংখ্যা বেড়ে গেছে
ষঘূর্ণিঝড়ের সংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে
ষবারবার ভয়াবহ বন্যা হচ্ছে
ষমাটির লবণাক্ততা বেড়ে কৃষিজমির ক্ষতি করছে
ষগাছপালা ও প্রাণী ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে
ষভূ-গর্ভস্থ পানির স্তর নিচে নেমে যাচ্ছে
ষগ্রীষ্মকালে সমুদ্রের লোনা পানি নদীতে প্রবেশ করছে
বাংলাদেশের জলবায়ু প্রতিনিয়ত পরিবর্তিত হচ্ছে। যার ফলে বাংলাদেশ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগের সম্মুখীন হচ্ছে। যেমন_ জলোচ্ছ্বাস, টর্নেডো, নদীভাঙন, খরা, শৈত্যপ্রবাহ, কালবৈশাখী, ভূমিকম্প ইত্যাদি।
গ) খরার কারণে কী কী সমস্যা হয়?
উত্তর : খরা : খরা একটি প্রাকৃতিক দুর্যোগ। দীর্ঘকাল ধরে শুষ্ক আবহাওয়া ও অপর্যাপ্ত বৃষ্টিপাতের কারণে খরা হয়। এর ফলে নানা ধরনের সমস্যা হয়। যেমন :
জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে খরাপীড়িত অঞ্চল তপ্ত হয়ে ওঠে। কুয়া, খাল, বিল শুকিয়ে যায়।
খাবার পানির সংকট দেখা দেয়।
ষনদীর স্বাভাবিক প্রবাহ কমে যায়।
ষভূ-গর্ভস্থ পানির স্তর নিচে নেমে যায়।
ষমাটির আর্দ্রতা কমে যায়।
ষমাঠের ফসল ফলাতে কষ্ট হয়।
ষগবাদি পশুর খাদ্য সংকট দেখা দেয়।
ষচাষাবাদ, পশুপালন ব্যাহত হয়।
ষঅত্যধিক গরমে শিশুরা বিদ্যালয়ে যেতে পারে না বা ঠিকমতো পড়ালেখা করতে পারে না।
ষখরার প্রভাবে বিভিন্ন রোগ-বালাই হয়। যেমন- ভাইরাস জ্বর, ডায়রিয়া, হাম, ইনফ্লুয়েঞ্জা, আমাশয় ইত্যাদি।
ষহাঁস, মুরগির মড়ক দেখা দেয়।
ষখরার সময় তেমন কাজ থাকে না। তাই অনেকের আয় বন্ধ হয়ে যায়।
মূলত দেশের উত্তরাঞ্চলের জেলাগুলোতে খরার প্রবণতা বেশি। এই খরার কারণে জনজীবন ব্যাহত হচ্ছে।
ঘ) বিভিন্ন দুর্যোগে শিশুদের লেখাপড়ার কী কী সমস্যা হয়?
উত্তর : দুর্যোগ হচ্ছে একটি মারাত্মক পরিস্থিতি। দুর্যোগের সময় মানুষ বিভিন্ন সংকটে পড়ে। শিশুরাও ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হয়। দুর্যোগে শিশুদের লেখাপড়ায় যেসব সমস্যা হয় তা হলো :
বন্যা ও ঘূর্ণিঝড়ে : বন্যা ও ঘূর্ণিঝড়ে বাড়িঘরে পানি উঠে যায়। রাস্তায় পানি জমে যায়। শিশুরা বিদ্যালয়ে যেতে পারে না। ফলে তাদের লেখাপড়ার ক্ষতি হয়।
নদীভাঙনে : সরকারি হিসাব মতে, বাংলাদেশে প্রতি বছর প্রায় ১০,০০০ হেক্টর জমি নদী ভাঙনের শিকার হয়। অনেক স্কুল ধ্বংস হয়ে যায়। এর ফলে শিশুদের লেখাপড়ার ক্ষতি হয়। নদী ভাঙনে লাখ লাখ মানুষ গৃহহীন হয়। সামাজিক জীবন ব্যাহত হয়। ফলে শিশুদের শিক্ষাজীবনের ক্ষতি হয়।
খরায় : অত্যধিক গরমে শিশুরা বিদ্যালয়ে যেতে পারে না। অনেক শিশু জ্বর, ডায়রিয়া, হাম, ইনফ্লুয়েঞ্জা, আমাশয়সহ নানা অসুখে ভোগে।
[ বাকি অংশ প্রকাশিত হবে আগামীকাল ]