প্রিয় শিক্ষার্থীরা, আজ বাংলা বিষয়ের সৃজনশীল পদ্ধতির বহুনির্বাচনী প্রশ্নোত্তর আলোচনা করা হলো। প্রথমে নিজেরা চেষ্টা করবে, পরে সঠিক উত্তরের সঙ্গে মিলিয়ে নেবে। পাঠশালায় প্রকাশিত কপিগুলো সংগ্রহে রেখে নিয়মিত অনুশীলন করবে।
(গত আলোচনার পর থেকে)


সৃজনশীল প্রশ্ন

১। উদ্দীপকটি পড়ে নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
রাজার এক পাখি। প্রকৃতির স্বাভাবিক নিয়মে সে গান গায়, বনের ফল খায়, উড়ে বেড়ায়। এক শ্রেণীর আত্মস্বার্থসচেতন মানুষ রাজাকে পরামর্শ দেয় পাখিকে শিক্ষা দিতে হবে।
কিন্তু প্রকৃতির বিরুদ্ধে সব আয়োজন ব্যর্থ হয়। পাখি পুঁথি পাঠের ভার বহন করতে না পেরে শেষ হয়ে যায়। আর বসন্তের বাতাসে মুকুলিত কিশলয়গুলো দীর্ঘ নিঃশ্বাস ফেলে।
ক) রাজার পাখিটির নাম কী?
উত্তর : রাজার পাখিটির নাম তোতা।
খ) পাখিকে শিক্ষা দেওয়ার সব আয়োজন ব্যর্থ হয় কেন? ব্যাখ্যা করো।
উত্তর : পাখিটি মারা যাওয়ায় তাকে শিক্ষা দেওয়ার সব আয়োজন ব্যর্থ হয়।
'তোতা কাহিনী' গল্পের রাজার তোতা পাখিটি প্রকৃতির স্বাভাবিক নিয়মে গান গেয়ে, বনের ফল খেয়ে মনের আনন্দে উড়ে বেড়াত। কিছু স্বার্থসচেতন মানুষের পরামর্শে রাজা পাখিটির শিক্ষাদানের ব্যবস্থা করেন। কিন্তু প্রকৃতির স্বাভাবিক নিয়মের ব্যতিক্রম ঘটায় সব আয়োজন ব্যর্থ হয়। পাখিটা পুঁথি পাঠের ভার বহন করতে না পেরে মারা যায়।
গ) মানুষের ভাষা অন্য প্রাণীকে শেখানোর প্রচেষ্টা সম্পর্কে তোমার মতামত ও অভিমত ব্যক্ত করো।
উত্তর : মানুষের ভাষা অন্য প্রাণীকে শেখানোর প্রচেষ্টা মূলত প্রকৃতির স্বাভাবিক নিয়মের বিরুদ্ধাচরণ করা। 'তোতা কাহিনী' গল্পের অপরিণামদর্শী রাজা তোতা পাখিটাকে মানুষের ভাষা শেখানোর চেষ্টা করেছিলেন। রাজার লোকজন পাখিটাকে স্বাভাবিক খাদ্য, ফলমূল না দিয়ে পুঁথি থেকে পাতা ছিঁড়ে কলমের ডগা দিয়ে তার মুখে দেয়। ফলে প্রকৃতির স্বাভাবিক নিয়মে সে যে গান গাইত, তা বন্ধ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে চিৎকার করার স্বাভাবিক ফাঁকটুকুও বন্ধ হয়ে যায়। পরিণামে মানুষের ভাষা শেখানোর সব উদ্যোগ ব্যর্থ করে পাখিটি মারা যায়।
তাই অন্য প্রাণীকে প্রকৃতির স্বাভাবিক নিয়মের বিরুদ্ধে গিয়ে মানুষের ভাষা শেখানোর প্রচেষ্টাকে আমি নির্বুদ্ধিতা বলে মনে করি।
ঘ) উদ্ধৃতাংশ থেকে রাজা, পরামর্শদাতা ও পাখির স্বভাবের বৈশিষ্ট্যগুলো বিশ্লেষণ করো।
উত্তর : রাজা 'তোতা কাহিনী' গল্পের রাজা নির্বোধ ও হঠকারী। তাই তোতা পাখির স্বাভাবিক আচরণ তার কাছে অসঙ্গত মনে হওয়ায় তিনি পাখিটাকে মানুষের মতো শিক্ষা দিতে চাইলেন। তার নির্বুদ্ধিতার কারণে পরামর্শদাতারা লাভবান হলেও পাখিটার প্রাণ যায়।
পরামর্শদাতা : রাজার পরামর্শদাতারা বোকা রাজাকে উল্টাপাল্টা বুঝিয়ে মোটা অঙ্কের পারিতোষিক নিয়ে বিদায় হয়। পুঁথির ভার বহন করতে না পেরে পাখিটা যখন মারা গেল, তখনও তারা রাজাকে বোঝাল যে পাখিটার শিক্ষা পুরো হয়েছে।
পাখি : পাখি প্রকৃতির স্বাভাবিক নিয়মে গান গায়, লাফায়, বনের ফলমূল খেয়ে গাছে গাছে উড়ে বেড়ায়। কিন্তু রাজার চাটুকার পরামর্শদাতারা বিদ্যা শিক্ষার নাম করে শেষ পর্যন্ত পাখিটাকে মেরে ফেলে।
[ বাকি অংশ প্রকাশিত হবে আগামীকাল ]

মন্তব্য করুন