ঘন সবুজ অরণ্য আর হাজারো হ্রদ মিলে গড়ে ওঠা ফিনল্যান্ড স্ক্যান্ডিনেভিয়ান দেশগুলোর মধ্যে নিম্নভূমি অঞ্চল হিসেবেই বেশি পরিচিত। ফিনিশীয়রা নিজেদের সুওমি বলতে ভালোবাসে। সুওমি মানে হ্রদ ও জলাভূমির দেশ। কয়েক হাজার বছর আগে দেশটি ছিল বরফের আস্তরণে ঢাকা। বরফের চাপেই ভূমির স্থানে স্থানে দেবে গিয়ে তৈরি হয়েছে হাজারো হ্রদ। ৩ লাখ ৩৮ হাজার ৪২৪ বর্গকিলোমিটারের এই দেশে জনসংখ্যা কিন্তু মোটেও বেশি নয়, মাত্র ৫৩ লাখ ৭১ হাজার ৫৩১। অথচ শিল্প-সংস্কৃতি এবং শিক্ষা-দীক্ষার ক্ষেত্রে স্ক্যান্ডিনেভিয়ান বিভিন্ন দেশের তুলনায় অনেক এগিয়ে। শিক্ষিতের হার শতভাগ করার জন্য দেশটির সব শহরে গড়ে তোলা হয়েছে অসংখ্য স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়। ফিনল্যান্ডের ওলু একটি জনপ্রিয় শহর। এ শহরেই ১৯৫৮ সালে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে একটি বিশ্ববিদ্যালয়, যার নাম 'ইউনিভার্সিটি অব ওলু'। এ বিশ্ববিদ্যালয়টি ফিনল্যান্ডের অন্য সব বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনেক বড়। বর্তমানে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে দেশি-বিদেশি মিলে প্রায় সতেরো হাজার শিক্ষার্থী নানা বিষয়ে পড়াশোনা করছে। শিক্ষার পরিবেশ সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য কাজ করছে প্রায় তিন হাজার কর্মকর্তা-কর্মচারী। বিশ্বের শ্রেষ্ঠ বিশ্ববিদ্যালয় তালিকায়ও ইউনিভার্সিটি অব ওলুর নাম প্রথম সারিতে। চারটি ক্যাম্পাসের মাধ্যমে পরিচালিত হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পুরো কার্যক্রম। প্রত্যেকটি ক্যাম্পাস গড়ে উঠেছে আলাদা আলাদা ফ্যাকাল্টি নিয়ে। কোনো কোনোটিতে আছে আবার একাধিক ক্যাম্পাসও। ইউনিভার্সিটি অব ওলুতে সাধারণত পড়ানো হয় প্রযুক্তি, বিজ্ঞান, চিকিৎসা, শিক্ষা এবং বাণিজ্যসংক্রান্ত বিষয়ে। এসব বিষয় আবার পরিচালিত হয় ছয়টি ফ্যাকাল্টির মাধ্যমে। ফ্যাকাল্টিগুলো হলো- ফ্যাকাল্টি অব টেকনোলজি, ফ্যাকাল্টি অব সায়েন্স, ফ্যাকাল্টি অব হিউম্যানিটিজ, ফ্যাকাল্টি অব মেডিসিন, ফ্যাকাল্টি অব এডুকেশন, ফ্যাকাল্টি অব ইকোনমিকস অ্যান্ড বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন।
ইউনিভার্সিটি অব ওলুতে সাধারণভাবে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শ্রেণীতেই পড়াশোনা করার সুযোগ আছে। তবে বিশ্ববিদ্যালয়টি আন্তর্জাতিক মানের কিছু বিষয়ের ওপর স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জনের সুযোগ করে দিয়েছে। এক বছরের এসব কোর্সে পড়াশোনা করার মাধ্যম হচ্ছে ফিনিশ ভাষা এবং ইংরেজি। আছে কমপক্ষে ৭০টি বিষয়ের ওপর গবেষণা করার সুযোগ। বিশ্বের অনেক নামকরা বিশ্ববিদ্যালয়েই শিক্ষার্থীদের জন্য আবাসন সুবিধা থাকে না। শিক্ষার্থীদের নিজ উদ্যোগে বাসা ভাড়া করে থাকতে হয়। কিন্তু ফিনল্যান্ডের ইউনিভার্সিটি অব ওলুতে শিক্ষার্থীদের জন্য আছে বিশাল ছাত্রাবাস। আবাসন সমস্যা কাটিয়ে উঠতে তৈরি করা হচ্ছে নতুন আরও ছাত্রাবাস। সব মিলে ফিনল্যান্ডের এই বিশ্ববিদ্যালয়টি বিদেশি শিক্ষার্থীদের জন্য একটি আদর্শ বিদ্যাপীঠ। ইউনিভার্সিটি অব ওলু সম্পর্কে বিস্তারিত জানার জন্য এবং যে কোনো তথ্য সংগ্রহের জন্য www.oulu.fi/english অ্যাড্রেসে ক্লিক করলেই সব পাওয়া যাবে।

মন্তব্য করুন