শিক্ষার্থী বন্ধুরা, শুভেচ্ছা নিও। আজ তোমাদের পরীক্ষার প্রস্তুতির সুবিধার্থে গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন নিয়ে আলোচনা করা হচ্ছে।

নমুনা প্রশ্ন

* প্রথম অনুচ্ছেদটি আসবে পাঠ্য বই থেকে। এ অনুচ্ছেদ পড়ে ১-৪ ক্রমিকের প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে।
* দ্বিতীয় অনুচ্ছেদ কিংবা কবিতাংশটি পাঠ্য বইয়ের বাইরে থেকে আসবে। এর আলোকে ৫-৭ ক্রমিকের প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে।
অনুচ্ছেদটি পড়ে ১, ২, ৩ ও ৪ নম্বর ক্রমিকের প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও :
এক রাতে রাজা ঘুমাতে যান। কিন্তু ভোরবেলা যখন তার ঘুম ভাঙে, তখনই দেখা যায় কী সর্বনাশ ঘটেছে। রাজা দেখেন যে তার শরীরে গেঁথে আছে অগুনতি সুচ। রাজা কথা বলতে পারেন না, শুতে পারেন না, খেতেও পারেন না। রাজ্যজুড়ে কান্নাকাটির রোল পড়ে যায়। রাজা বোঝেন, প্রতিজ্ঞা ভঙ্গের সেই অপরাধেই আজকে তার এই দশা। রানী কাঞ্চনমালা চোখের জল মুছতে মুছতে রাজ্য দেখাশোনা শুরু করেন। কাঞ্চনমালা একদিন নদীর ঘাটে স্টম্নান করতে যান। কোথা থেকে জানি একটা মেয়ে এলো। এসে তাকে বলে, রানীর যদি দাসীর দরকার হয়, তো সে দাসী হবে। রাজার শরীর থেকে সুচ খোলার জন্য একজনের দরকার ছিল রানী কাঞ্চনমালার। মেয়েটাকে সেই কাজের জন্য নিয়ে নেন রানী। নদীর ঘাটে গেছেন রানী, সঙ্গে কী করে থাকে টাকাকড়ি। তখন হাতের সোনার কাঁকন দিয়েই রানীকে কিনতে হয় ওই দাসী। তাই তার নাম কাঁকনমালা। গায়ের গহনাগুলো কাঁকনমালার কাছে রেখে নদীতে ডুব দিতে যান রানী। চোখের পলকে কাঁকনমালা রানীর সব গহনা আর শাড়ি পরে নেয়। রানী ডুব দিয়ে উঠে দেখেন দাসী হয়ে গেছে রানী আর রানী কাঞ্চনমালা হয়ে গেছেন দাসী। নকল রানী কাঁকনমালার ভয়ে কাঁপতে থাকেন কাঞ্চনমালা, কাঁপতে থাকে রাজপুরীর সবাই। সবাই ভাবতে থাকে, তাদের রানী তো আগে এমন ছিল না। সুচ বিঁধা রাজা জানতেই পারেন না, তার রাজ্যে আরেক কী ঘোর ঝামেলা এসে গেছে। দুখিনী কাঞ্চনমালা রাজবাড়ির সব কাজকর্ম করেন। চোখের জল ফেলেন।
১। সঠিক উত্তর লেখো : ১ু৫=৫
(১) অনুচ্ছেদটি তোমার পাঠ্য বইয়ের কোন গল্প থেকে নেওয়া হয়েছে?
র. কাঞ্চনমালা আর কাঁকনমালা
রর. কাঁকনমালা আর কাঞ্চনমালা
ররর. সুচ রাজপুত্র ও রাখাল বন্ধু
রা. কাঞ্চনমালা আর কাঁকনবালা
(২) রানী কোথায় স্টম্নান করতে যান?
র. পুকুর ঘাটে রর. নদীর ঘাটে
ররর. রাজবাড়ির হ্রদে রা. কলতলায়
(৩) রানীর কেন দাসীর দরকার ছিল?
র. রানীর সেবা-যত্মেম্নর জন্য
রর. রাজবাড়ির কাজের জন্য
ররর. রানীর গা ধুয়ে দেওয়ার জন্য
রা. রাজার শরীর থেকে সুচ খোলার জন্য
(৪) নদীর ঘাটে রানীর সঙ্গে কী ছিল না?
র. শাড়ি রর. গহনাগাটি
ররর. টাকাকড়ি রা. সোনার কাঁকন
(৫) কার ভয়ে রাজপুরীর সবাই কাঁপতে থাকে?
র. নকল রানীর রর. রানীর
ররর. রাজপুত্রের রা. অচিন মানুষের
২। প্রশ্নগুলোর উত্তর লেখো : ১+২+২=৫
(ক) 'রাজা' কোন পদ?
(খ) রাজার ঘুম ভাঙলে তিনি কী দেখেন? দুটি বাক্যে লেখো।
(গ) রানী রাজবাড়ির সব কাজকর্ম করেন কেন? দুটি বাক্যে লেখো।
৩। শব্দগুলোর অর্থ লেখ : ৫
সর্বনাশ, অগুনতি, প্রতিজ্ঞা, স্টম্নান, কাঁকন
৪। অনুচ্ছেদের সারাংশ লেখো : ৫
অনুচ্ছেদটি পড়ে ৫, ৬ ও ৭ নম্বর ক্রমিকের প্রশ্নগুলোর উত্তর লেখ।
তখন কেবল সূর্য উঠেছে, পূর্ব দিগন্তে লাল সূর্য। এ রকম একটা মুহূর্তে বাংলাদেশের লাল-সবুজ পতাকাকে এভারেস্টের শীর্ষে উড়িয়ে দিলেন এক তরুণ।
[ বাকি অংশ প্রকাশিত হবে আগামীকাল ]

মন্তব্য করুন