অ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং

প্রকাশ: ১৫ জানুয়ারি ২০২০

ফারজানা আক্তার

ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ আছে এভিয়েশন সেক্টরে। এইচএসসি বা সমমান পাসের পরই একজন শিক্ষার্থী লেখাপড়া শুরু করতে পারেন অ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে। বিটেক লেভেল-৫ হায়ার ন্যাশনাল ডিপ্লোমা ইন অ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং প্রোগ্রামটি যুক্তরাষ্ট্রের শিক্ষা বোর্ড পিয়ারসন, ইউকেএর অধীনে পরিচালিত একটি অ্যাডভান্সড ডিপেল্গামা প্রোগ্রাম। যার মাধ্যমে এইচএসসি 'এ' লেভেল পাসের পর মাত্র তিন থেকে চার বছরেই একজন শিক্ষার্থী ব্যাচেলর অর্থাৎ গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন করতে পারবেন। কোর্সটি প্রতি বছর দশ লাখেরও বেশি মেধাবী শিক্ষার্থী সম্পন্ন করে থাকেন। বিশ্বের ১১০টিরও বেশি দেশে ২০ হাজারের অধিক আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে সফলতার সঙ্গে কোর্সটি পরিচালিত হচ্ছে। শিক্ষার্থী বিটেক লেভেল-৫ হায়ার ন্যাশনাল ডিপ্লোমা ইন অ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং প্রোগ্রামটি বাংলাদেশে লেখাপড়া শেষে বিমান মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণে প্রকৌশলবিদ্যায় পারদর্শী হতে চাইলে পরবর্তী তৃতীয়, চতুর্থ বছর ফ্লাইট স্কুল ইন্টারন্যাশনাল ফিলিপিন্সে উচ্চশিক্ষার মাধ্যমে পারেফেডারেল এভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন অ্যাসোসিয়েটেড, সিভিল এভিয়েশন অথরিটি অব ফিলিপাইন অনুমোদিত বিমান ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতক ডিগ্রিধারী একজন দক্ষ এয়ারক্র্যাফট মেইনটেন্যান্স ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে (এমই) লাইসেন্সড ইঞ্জিনিয়ার। এছাড়া শিক্ষার্থীরা উড়োজাহাজ প্রোডাকশন কিংবা এয়ারক্র্যাফট ম্যানুফ্যাকচারিংয়ে প্রকৌশলী হিসেবে ক্যারিয়ার গড়তে শিক্ষার্থী তৃতীয়, চতুর্থ বছর চায়নার বিখ্যাত সেন ইয়াং অ্যারোস্পেস ইউনিভার্সিটিতে বিএসসি ইন অ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং প্রোগ্রামে লেখাপড়ার মাধ্যমে অর্জন করতে পারবে অ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে স্নাতক ডিগ্রি। শিক্ষার্থী এয়ারপোর্ট কিংবা এয়ারলাইন্স ব্যবস্থাপনায় নিশ্চিত ক্যারিয়ার গড়তে চাইলে লেখাপড়া করতে পারেন এভিয়েশন ম্যানেজমেন্ট কলেজ, মালয়েশিয়ার তত্ত্বাবধানে পরিচালিত ব্যাচেলর (অনার্স) ইন এয়ারলাইন্স অ্যান্ড এয়ারপোর্ট ম্যানেজমেন্ট প্রোগ্রামে।

একটি বিমান নিরাপদ গন্তব্যস্থলে পৌঁছে দেওয়ার দায়িত্ব যেমন উড়োজাহাজটির ক্যাপ্টেনের, তেমনি বিমানটির নিরাপদ উড্ডয়নের পূর্বপ্রস্তুতি ও সার্বিক রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব বিমানে কর্মরত এয়ারক্র্যাফট মেইনটেন্যান্স ইঞ্জিনিয়ারদের। বিমানটির উড্ডয়নের আগে সেটির ইলেকট্রিক্যাল পাওয়ারপ্ল্যান্ট এবং খুঁটিনাটি যন্ত্রপাতির ত্রুটি-বিচ্যুতি নির্ণয়ক কর্তব্যরত এয়ারক্র্যাফট মেইনটেন্যান্স ইঞ্জিনিয়ারদের যখন ছাড়পত্র প্রদান করে, কেবল তখনই বিমানটি কর্তৃপক্ষ কর্তৃৃক উড্ডয়নের অনুমতি পায়। এই অ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরাই ভবিষ্যতের ফ্লাইট সেফটি, এয়ারপোর্ট ম্যানেজমেন্ট, প্ল্যানিং, এয়ারক্র্যাফট মেইনটেন্যান্স, বহুবিধ এয়ারলাইন্স ও এভিয়েশন সেক্টরে কর্মক্ষম এয়ারক্র্যাফট ইঞ্জিনিয়ার। বিস্তারিত জানতে ক্যামব্রিয়ান ইন্টারন্যাশনাল কলেজ অব এভিয়েশন (সাইকা)-গ-৩৭/১, জামালপুর টাওয়ার, ব্লক-জে, বারিধারা, ঢাকা।

মোবাইল :০১৭৬২৬-৮৮০৩৫, ০১৭৬২৬-৮৮০৩৮।

িি.িপধসনৎরধহ.বফঁ.নফ