প্র্রশ্ন : মধ্যযুগের অন্যতম সাহিত্য ধারা কী কী?

উত্তর : বৈষ্ণব পদাবলি, জীবনী সাহিত্য, মঙ্গলকাব্য, কবিগান, পুথি সাহিত্য, অনুবাদ সাহিত্য, মর্সিয়া সাহিত্য ইত্যাদি।

প্রশ্ন : কার পৃষ্ঠপোষকতায় 'বিদ্যাসুন্দর' রচিত হয়?

উত্তর : রাজা কৃষ্ণচন্দ্রের।

প্রশ্ন : 'বিদ্যাসুন্দর' কে রচনা করেন?

উত্তর : ভারতচন্দ্র।

প্র্রশ্ন : কোন কবি গিয়াস উদ্দিন আজম শাহের রাজকর্মচারী ছিলেন?

উত্তর : শাহ মুহম্মদ সগীর।

প্রশ্ন : কবি মালাধর বসুর পৃষ্ঠপোষক কে ছিলেন?

উত্তর : শামসউদ্দিন ইউসুফ শাহ।

প্র্রশ্ন : রাজা লক্ষ্মণ সেনের সভাকবি কে ছিলেন?

উত্তর : ভারতচন্দ্র।

প্রশ্ন : হোসেন শাহের পৃষ্ঠপোষকতায় কে কাব্যচর্চা করেন?

উত্তর : রূপ গোস্বামী।

প্র্রশ্ন : বাংলায় মহাভারত রচনা করেন কে?

উত্তর :কবীন্দ্র পরমেশ্বর।

প্রশ্ন : বাংলায় সর্বপ্রথম 'বিদ্যাসাগর কাহিনি' কার আমলে রচিত হয়?

উত্তর : হুসেন শাহের আমলে।

প্রশ্ন : 'মনসামঙ্গল' কোন ধরনের কাব্য?

উত্তর :বাংলার লৌকিক কাহিনি।

প্রশ্ন :'মনসামঙ্গল' কাব্য রচনা করেন কে?

উত্তর : কবি বিজয়গুপ্ত।

প্রশ্ন : রামায়ণের অনুবাদ করেন কে?

উত্তর : কৃত্তিবাস।

প্রশ্ন : মধ্যযুগে কোন কবি বাংলাদেশে এসেছিলেন?

উত্তর : কবি হাফিজ।

প্রশ্ন : কবি হাফিজকে বাংলাদেশে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন কে?

উত্তর : গিয়াসউদ্দিন আজম শাহ।

প্র্রশ্ন : বাংলা সাহিত্যের প্রধান প্রধান ধারা কী?

উত্তর : গীতিকবিতা, মহাকাব্য, উপন্যাস, গল্প, নাটক, প্রহসন, প্রবন্ধ, অভিসন্দর্ভ, সমালোচনা, পত্রসাহিত্য, জীবনী ইত্যাদি।

প্রশ্ন : কার আদেশে বাংলায় মহাভারত রচনা করা হয়?

উত্তর : পরাগল খানের।

প্রশ্ন : ছুটি খানের সভাকবি কে ছিলেন?

উত্তর : শ্রীকর নন্দী।

প্র্রশ্ন : 'পদ্মাবতী' কে রচনা করেন?

উত্তর : মহাকবি আলাওল।

গ্রন্থনা : তারিক হাসান

মন্তব্য করুন