শিক্ষক রিটন শীলের দুটো কিডনিই নষ্ট

প্রকাশ: ০৮ জুলাই ২০১৮      

পানছড়ি (খাগড়াছড়ি) সংবাদদাতা

পানছড়ি উপজেলার লোগাং বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের কৃষি বিজ্ঞানের শিক্ষক রিটন কান্তি শীলের দুটি কিডনিই অকেজো হয়ে পড়েছে। একটি সম্পূর্ণ অকেজো আর একটি কিডনি মাত্র ৪০ শতাংশ সচল রয়েছে। সেটির প্রতিদিন ডায়ালাইসিস করতে হচ্ছে।

নতুন কিডনি প্রতিস্থাপন করলে তাকে বাঁচানো সম্ভব বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। ব্যয়বহুল এই চিকিৎসায় ২০ লক্ষাধিক টাকার প্রয়োজন। শিক্ষক রিটন শীলের পরিবারের পক্ষ থেকে এত টাকা জোগাড় করা সম্ভব নয়। সবাই যদি একটু সহযোগিতার হাত বাড়ায় তাহলে তাকে বাঁচানো সম্ভব।

জানা যায়, পানছড়ি টিএন্ডটি টিলার মৃত নিরঞ্জন শীলের সন্তান রিটন চন্দ্র শীল সুঠাম দেহী, মিষ্টি ভাষী ও বিদ্যালয়ের একজন নামকরা শিক্ষক। সেই প্রিয় শিক্ষকের কংকাল দেহ আর বাঁচার আকুতি দেখে শিক্ষার্থীরাও ভেঙ্গে পড়েছে কান্নায়। প্রিয় স্যারকে সহযোগিতা দিতে টিফিনের টাকা জমিয়ে তহবিল গঠন করছে তারা। লিটনের স্ত্রী তিন সন্তানের জননী জ্যোৎস্না শীল জানান, প্রতিদিন হাজার হাজার টাকা খরচ হচ্ছে। আমার স্বামীকে বাঁচাতে সবাই এগিয়ে আসুন। সাহায্য পাঠানো যাবেন এই নম্বরে- মোবাইল ও বিকাশ ০১৭০৪৪৬২৬০৬।