সন্দ্বীপে ভুয়া ডাক্তার দেলোয়ারের ছয় মাসের কারাদণ্ড

প্রকাশ: ০৮ জুলাই ২০১৮      

মাসে মাসে তাদের কাছ থেকে নির্দিষ্ট অঙ্কের টাকা নেন। আবার কিছু কিছু অখ্যাত কোম্পানির ওষুধ দিয়ে নিজের পকেট ভারী করেন। দীর্ঘদিন ধরে সচেতন মানুষের অভিযোগ, তার চিকিৎসায় রোগীরা প্রতারিত হচ্ছেন। চোখের চিকিৎসায় মানুষ ভালো হওয়ার পরিবর্তে দিন দিন খারাপ ফল পেয়েছেন। কেউ কেউ হারিয়েছেন দৃষ্টিশক্তি।

অবশেষে এই ভুয়া চিকিৎসকের খবরটি যায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্র্রেট মো: নুরুল হুদার কাছে। মাইকের প্রচারিত সময় অনুযায়ী গত ২৯ জুন বিকাল ৪টায় ইউএনও পুলিশ নিয়ে হানা দেন সন্দ্বীপের বাতেন মার্কেটে সাদিয়া ফার্মেসিতে, যেখানে রোগী দেখেন দেলোয়ার। প্রয়োজনীয় কাগজপত্র চাইতেই মুখোশ উন্মোচিত হয়ে পড়ে এ ভুয়া ডাক্তারের। পরে মোবাইল কোর্টে ভুয়া ডা. দেলোয়ার তার অযোগ্যতার কথা অকপটে স্বীকার করেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নুরুল হুদার নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত কোনো প্রকার ডিগ্রি ছাড়া মিথ্যা তথ্য প্রচারের মাধ্যমে মূল্যবান চোখের চিকিৎসা নিয়ে সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করার অভিযোগে ভুয়া ডাক্তার দেলোয়ার হোসেনকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দেন। দেলোয়ার যে ভুয়া ডাক্তার এবং তাকে যে ভ্রাম্যমাণ আদালত কারাদণ্ড দিয়েছেন, এ খবর প্রচারিত হওয়ার পর গোটা সন্দ্বীপে সাধারণ রোগীদের মধ্যে স্বস্তি নেমে আসে।