পুলিশ সেবা সপ্তাহ

'ওসি এখানে, তথ্য দিন সেবা নিন'

প্রকাশ: ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯      

পটিয়া প্রতিনিধি

সকাল ১১টা। পটিয়া থানার কমপাউন্ডে তৈরি করা হয়েছে মঞ্চ। মঞ্চের পেছনে ঝুলানো হলো একটি ব্যানার। ব্যানারটিতে লেখা হয়েছে, 'কথা বলুন আপনার ওসির সাথে'। 'ওসি এখানে'। 'তথ্য দিন, সেবা নিন।'

পুলিশ সেবা সপ্তাহ উপলক্ষে গত বুধবার পটিয়া থানা কম্পাউন্ডে ঢুকতে এমন আয়োজন। মঞ্চে বসা ছিলেন ওসি শেখ মোহাম্মদ নেয়ামত উল্লাহ, এই সময় এক মহিলা কাঁদতে কাঁদতে থানার ভেতর থেকে বেরিয়ে আসছিলেন। ওসি তাকে ডেকে জিজ্ঞেস করলেন আপনি কাঁদছেন কেন? মহিলা বললেন, 'আমার ছেলেকে পুলিশ রাতে ধরে এনেছে। আমার ছেলে তুষার গত বছর এসএসসি পাশ করেছে। কিন্তু টাকার অভাবে তাকে কলেজে ভর্তি করতে পারিনি। গত রাতে ৭টার সময় সে আমার বাড়ির পাশে একটি ব্রিজের ওপর বন্ধুদের নিয়ে গল্প করার সময় অপর বন্ধু শত্রুতা করে কাগজে একটি ইয়াবা ট্যাবলেট বেঁধে তার পেছনে রেখেছিল। পুলিশকে খবর দিলে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। আমি খুব গরিব থানায় আসতে গাড়ি ভাড়াও ছিল না। আরেকজন থেকে নিয়ে এসেছি।'

ওসি তার কথা শুনে এএসআই রফিককে ডেকে বললেন, 'খেয়াল খুশিমতো লোক ধরবেন না। তুষারকে ছেড়ে দিন।' এই কথা শুনার পর তুষার মা মনোয়ারা বেগম খুশিতে আত্মহারা। তাকে ছেড়ে দিলে মা ছেলেকে নিয়ে বাড়ি চলে যান। তুষার কেলিশহর গ্রামের দিনমজুর আহমদ মিয়ার পুত্র। এরপর রিনা আকতার নামের এক মহিলা এসেছেন উপজেলার কচুয়াই ইউনিয়নের উত্তর শ্রীমাই এলাকা থেকে। তিনি জানালেন তার স্বামী শাহ আলমের সাথ রফিকের ব্যবসা রয়েছে। শাহ আলমকে ব্যবসা থেকে উচ্ছেদ করার জন্য রফিক ও তার ভাই মহিম দুই জনই ষড়যন্ত্র করছে। গত এক সপ্তাহে আগে মহিম রিনার নামে অপপ্রচার চালিয়ে তার ছেলে মেয়েকে খুন করার প্রচেষ্ঠা চালায়। এনিয়ে স্থানীয় ইউপি মেম্বার নাসিমের কাছে বিচার দিলে নাসির বিচারে জামানত বাবদ ৫০ হাজার টাকা দাবি করে। এর মধ্যে উভয় পক্ষ থকে ২০ হাজার টাকা করে জামানত নেয় ইউপি মেম্বার নাছিম। বিষয়টি শুনে ওসি কচুয়াই ইউপি চেয়ারম্যান ইনজামুল হক জসিমকে ফোন দেন। রিনা আকতারের ঘটনাটি তদন্ত করে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ জানান। এভাবে সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত উপজেলার বিভিন্ন প্রান্ত্ম থেকে আসা সেবা প্রার্থীদের সহযোগিতা করেন ওসি। পুলিশের সেবা উপলক্ষে পটিয়া থানা কমপাউন্ডে ও পটিয়া সরকারি কলেজ গেট এলাকায় পৃথক দুটি মঞ্চ তৈরি সেবা দেওয়া হয়।