'মাদক একটি ভয়ানক মরণব্যাধি। এর ভয়াবহতা সম্পর্কে সবাই অবগত। কিন্তু তারপরও সমাজের একশ্রেণির মানুষ মাদকসেবন, মাদক পাচার, মাদক বাজারজাতকরণ কাজে জড়িত। মাদকের ভয়াবহ পরিণতির ফলে সামাজিক অনাচার, নৈরাজ্য, বিশৃঙ্খলা, পারিবারিক অশান্তি ও ভয়াবহ অপরাধের সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। নতুন প্রজন্ম ক্রমবর্ধমান হারে মাদকের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ছে। বাংলাদেশে মাদকের সংস্কৃতি বেশ পুরোনো। মাদক শেষ করে দিয়েছে অনেক সম্ভাবনাময় তরুণের ভবিষ্যৎ। এর থেকে দ্রুত পরিত্রাণের জন্য এখন থেকেই প্রচেষ্টা চালাতে হবে। তা না হলে সুস্থ সমাজ বিনির্মাণ বাঙালি জাতির জন্য দুঃস্বপ্নে পরিণত হবে।'

বৃহস্পতিবার সীতাকুণ্ড উপজেলার সোনাইছড়ি ইউনিয়ন চত্বরে বিট পুলিশিং কার্যালয়ের সহযোগিতায় ও সীতাকুণ্ড মডেল থানার আয়োজনে মাদক ও জঙ্গিবিরোধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কথাগুলো বলেন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফিরোজ হোসেন মোল্লা।

সোনাইছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান মনির আহম্মেদের সভাপতিত্বে ছাত্রনেতা শাহরিয়ার রাশেদের সঞ্চালনায় সমাবেশে বিশেষ অথিতি ছিলেন সীতাকুণ্ড প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি এম সেকান্দর হোসাইন, শীতলপুর উচ্চবিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি জাকির হোসেন, ব্যবসায়ী সেলিম উদ্দিন মানিক, ইউপি সদস্য মো. ইয়াকুব, আওয়ামী লীগ নেতা তারেক উদ্দিন সিকদার।

এতে বক্তারা আরও বলেন, 'একটা দেশের উন্নয়নের পূর্বশর্ত আইনশৃঙ্খলার উন্নয়ন। আইনশৃঙ্খলার উন্নয়ন করতে গিয়ে পুলিশ বাহিনী নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। মাদক, জঙ্গি ও ধর্ষণবিরোধী সচেতনতা কার্যক্রম পরিবার থেকেই শুরু করতে হবে। যে কোনো ধরনের খারাপ পরিস্থিতি দেখলে অবশ্যই থানা-পুলিশকে অবগত করতে হবে।'

মন্তব্য করুন