গত বছর করোনার কঠিন প্রকোপের সময় তিনি শ্রমজীবী গরিব মানুষের জন্য চালু করেছিলেন 'বিনামূল্যে সবজি বাজার'। এবার চালু করলেন 'বিনামূল্যে মুদির দোকান'। এই দোকান থেকে গরিব মানুষ স্বাস্থ্যবিধি মেনে সংগ্রহ করছেন প্রয়োজনীয় পণ্য।

সাবেক ছাত্রলীগ নেতা তোসাদ্দেক নূর চৌধুরী তপুর উদ্যোগে নগরীর পাঁচলাইশ থানার মোহাম্মদপুরে গত বুধবার শ্রমজীবী মানুষের জন্য 'বিনামূল্যে মুদির দোকান' চালু করা হয়েছে। করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ আঘাত হেনেছে, সরকার দেশব্যাপী লকডাউন ঘোষণা করেছে এক সপ্তাহের জন্য। এমন পরিস্থিতিতে চলমান লকডাউনে সাধারণ মানুষের জন্য বিনামূল্যে মুদির দোকান প্রতিদিন বিকেল ৩টা থেকে ৫টা পর্যন্ত চালু থাকবে। ইতোমধ্যে প্রান্তিক মানুষ এই দোকান থেকে নানা সমাগ্রী পেয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন।

প্রসঙ্গত, গত বছর করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের সময় তোসাদ্দেক নূর চৌধুরী তপু 'বিনামূল্যে সবজি বাজার' চালু করছিলেন; যা চট্টগ্রামে বেশ প্রশংসিত হয়েছিল।

বিনামূল্যে এই মুদির দোকান রয়েছে চাল, ডাল, তেল, লবণ, আটা, ময়দা, সুজি, চিনি, সেমাই, নুডলস, চিড়া, পেঁয়াজ, আদা, রসুন, হলুদ, মরিচ, তেজপাতা, জিরা, দারচিনি, এলাচি, হরেক রকমের মসলা, গুড়, মুড়ি, তেল, লবণ, ব্রেড, বিস্কুট, চানাচুর,খাবার স্যালাইন, টেস্টি হজমি, জুস, পাউডার ড্রিংক, মিনারেল ওয়াটার, চা পাতাসহ আরও অনেক কিছু।

এমন ব্যতিক্রমী উদ্যোগ প্রসঙ্গে তোসাদ্দেক নূর চৌধুরী তপু বলেন, 'শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এমপির নির্দেশনায় শ্রমজীবী মানুষের জন্য বিনামূল্যে মুদির দোকান চালু করেছি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে যে কোনো শ্রেণির মানুষ প্রতিদিন এই মুদির দোকান থেকে নিজেদের প্রয়োজনীয় পণ্য নিতে পারবেন। করোনার এমন দুঃসময়ে শ্রমজীবী মানুষের পাশে দাঁড়াতে পেরে আমি আনন্দিত।'

মোহাম্মদপুরের রিকশাচালক মো. লোকমান হোসেন বলেন, 'লকডাউনের কারণে এক সপ্তাহ ধরে কোনো আয়-রোজগার নেই। ঘরে আছে অসুস্থ বৃদ্ধা মা। ছয় সদস্যের সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছি। বিনামূল্যে মুদির দোকান থেকে প্রয়োজনীয় সামগ্রী পাওয়ায় অনেক বড় উপকার হয়েছে। নাইলে না খেয়ে থাকতে হতো। আমার মতো গরিবদের জন্য এমন উদ্যোগ অনেক স্বস্তির ও আনন্দের।'

মন্তব্য করুন