মিরসরাইয়ে নির্মিত হলো দৃষ্টিনন্দন মডেল মসজিদ ও ইসলামী সাংস্কৃতিক কেন্দ্র। মুজিববর্ষের উপহার হিসেবে প্রথম ধাপের ৫০টি মডেল মসজিদ ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের মধ্যে একটি নির্মাণ করা হয়েছে মিরসরাই উপজেলা সদরে। মডেল মসজিদ ও ইসলামী সাংস্কৃতিক কেন্দ্র গত বৃহস্পতিবার ডিভিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মিরসরাইয়ে নান্দনিক সৌকর্যে নির্মিত এই মসজিদ নিয়ে মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষের মধ্যে দারুণ উৎসাহ-উদ্দীপনা সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, ইসলামের ভ্রাতৃত্ব ও মূল্যবোধের প্রচার, উগ্রবাদ ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে ইসলামের প্রকৃত মর্মবাণী সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছাতেই সরকার সারাদেশে ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামী সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্প হাতে নেয়। সরকারের ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে মডেল মসজিদ ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের ভৌত অবকাঠামো গণপূর্ত অধিদপ্তরের মাধ্যমে ইসলামিক ফাউন্ডেশন বাস্তবায়ন করেছে।

বি-ক্যাটাগরি হিসেবে ৪০ শতাংশ জমির ওপর নির্মিত হয়েছে তিনতলা বিশিষ্ট দৃষ্টিনন্দন মডেল মসজিদ ও ইসলামী সাংস্কৃতিক কেন্দ্রটি। তৃতীয় তলায় মডেল মসজিদ (টাইপ-বি) প্রতি ফ্লোরের আয়তন ১ হাজার ৬৮০ দশমিক ১৪ বর্গমিটার। ভবনের মোট আয়তন ২৯ হাজার ৬০০ বর্গফুট। বাস্তবায়ন ব্যয় ১৩ কোটি ৪১ লাখ ৮০ হাজার টাকা। এ মডেল মসজিদে একসঙ্গে ৯০০ মানুষের নামাজ আদায়ের ব্যবস্থা রয়েছে।

ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স জাকির হোসেন-মহসিন-জব্বারিয়ার (জেভি) সাইট ইঞ্জিনিয়ার ওমর ফারুক জানান, আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সংবলিত সুবিশাল মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কমপ্লেক্সে নারী ও পুরুষের জন্য আলাদা অজু ও নামাজ আদায়ের ব্যবস্থা রয়েছে। এ ছাড়া লাইব্রেরি, গবেষণা কেন্দ্র, ইসলামিক বই বিক্রয় কেন্দ্র, কোরআন হেফজ বিভাগ, শিশুশিক্ষা, অতিথিশালা, বিদেশি পর্যটকদের আবাসন, মৃতদেহ গোসলের ব্যবস্থা, হজযাত্রীদের নিবন্ধন ও প্রশিক্ষণ, ইমামদের প্রশিক্ষণ, অটিজম কেন্দ্র, গণশিক্ষা কেন্দ্র, ইসলামী সংস্কৃতি কেন্দ্র রয়েছে। ইমাম-মুয়াজ্জিনের আবাসনসহ সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য অফিসের ব্যবস্থা এবং গাড়ি পার্কিং সুবিধা রাখা হয়েছে।

প্রকল্প পরিচালক মো. নাজিবার রহমান বলেন, জাতির পিতার পদচিহ্ন অনুসরণ করে ও ইসলামের সুমহান চেতনায় অনুপ্রাণিত হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারাদেশে ৮ হাজার ৭২২ কোটি টাকা ব্যয়ে ৫৬০টি মডেল মসজিদ নির্মাণের প্রকল্প হাতে নিয়েছেন। মডেল মসজিদগুলো শুধু নামাজ পড়ার মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে না। এখানে ইসলামী সংস্কৃতি চর্চার পাশাপাশি জ্ঞান অর্জন ও গবেষণার সুযোগ থাকবে, প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা রয়েছে।

মিরসরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিনহাজুর রহমান জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মসজিদ ও ইসলামী সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের উদ্বোধন করেন। এ সময় সাবেক মন্ত্রী ও মিরসরাইয়ের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক একেএস জাহাঙ্গীর হোসেন ভূঁঞাসহ অতিথিরা উপস্থিত ছিলেন। উদ্বোধন শেষে নামাজ আদায়ের জন্য মসজিদটি উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে।

বিষয় : মিরসরাই ইসলামী সংস্কৃতি চর্চার কেন্দ্র

মন্তব্য করুন